১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গ্রামে বসেও মিলবে বিমানের টিকেট

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গ্রামে বসেও পাওয়া যাবে এখন বিমানের টিকেট। বিমানের অভ্যন্তরীণ রুটের ই-টিকেটের সুবিধা মিলবে সব ইউনিয়নে। আপাতত ১১ জেলার ১০০টি উপজেলায় এ সেবা চালু হলেও দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় একটি করে ডিজিটাল সেন্টার খোলা হবে। এ লক্ষ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ চুক্তিতে সই করেন এটুআই প্রকল্পের পরিচালক ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক প্রশাসন কবির বিন আনোয়ার ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মার্কেটিং ও সেলসের পরিচালক মোহাম্মদ শাহ নেওয়াজ।

বিমান সূত্র জানায়, এটা ছিল যাত্রীদের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা। সে প্রত্যাশা পূরণে বিমান নিয়েছে এই পদক্ষেপ। এটা চালু তৃণমূল পর্যায়ের একজন যাত্রীকে টিকিটের জন্য কষ্ট করে ঢাকায় আসতে হবে না। এ ধরনের কার্যক্রম বিমানের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে। এ ছাড়া স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গড়ে তোলা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের বিমান উড়বে দেশের সব মানুষকে নিয়ে।

বিমানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী মার্কেটিং ও সেলসের পরিচালক মোহাম্মদ শাহ নেওয়াজ বলেন, এই চুক্তির ফলে দেশের যেসব এলাকায় বিমানবন্দর রয়েছে সেসব এলাকার সাধারণ মানুষ ইউনিয়ন পর্যায়ে বসেই ডিজিটাল সেন্টার থেকে বিমানের টিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন। এ সেবা পর্যায়ক্রমে দেশের সব ডিজিটাল সেন্টার থেকে পাওয়া যাবে।

মোহাম্মদ শাহ নেওয়াজ বলেন, আপাতত দেশের ১১টি জেলার ১০০টি ডিজিটাল সেন্টারে এ সেবা পাওয়া যাবে। ইউনিয়ন ও পৌর ডিজিটাল সেন্টারে বিমানের অভ্যন্তরীণ রুটের টিকেট বিক্রির এ উদ্যোগ প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশেরই একটি অংশ। দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকা পর্যায়ক্রমে এই সুবিধার আওতায় আনা হবে।

আর্থ-সামাজিক পরিস্থিতি বিবেচনায় বাংলাদেশে এ ধরনের উদ্যোগকে খুবই ইতিবাচক উল্লেখ করেছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল জামাল উদ্দিন আহমেদ।