২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাজারে নতুন টাকার নোট বিক্রি ঠেকাতে বায়োমেট্রিক মেশিন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রতিবছর ঈদ-উল-ফিতর এবং ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষ্যে জনসাধারণের মাঝে নতুন নোটের বিপুল চাহিদা থাকে। বাংলাদেশ ব্যাংকসহ অন্যান্য বাণিজ্যিক ব্যাংকের শাখার মাধ্যমে নতুন নোট বিতরণ করা হয়। কিন্তু বিভিন্নভাবে এই নোট সংগ্রহ করে খোলা বাজারে বিক্রি করে একটি চক্র। এবার এই চক্র ঠেকাতে একজন গ্রাহক যেন বারবার নতুন টাকা নিতে না পারে এজন্য বায়োমেট্রিক মেশিন চালু করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

রবিবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দেশের বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে জনপ্রতি নির্ধারিত পরিমাণের নতুন নোট জনসাধারণের মাঝে বিতরণ করা হয়। কিন্তু নতুন নোট বিনিময়কালে দেখা যায় একই ব্যক্তি বারংবার লাইনে দাড়িয়ে তাঁর জন্য নির্ধারিত নতুন নোটের অধিক পরিমাণ নোট গ্রহণ করে থাকে। এর ফলে অনেকেই নতুন নোট প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়। নতুন নোটের সুষম বন্টন নিশ্চিতকল্পে এবং নতুন নোট প্রত্যাশী প্রত্যেকে যাতে নির্বিঘেœ এবং সুশৃঙ্খলভাবে নোট গ্রহণ করতে পারে সে উদ্দেশ্যে আসন্ন ঈদ-উল-আযহা,২০১৫ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক মতিঝিল অফিসে নোট গ্রহীতাদের সনাক্তকরণের জন্য বায়োমেট্রিক মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। এ মেশিনের মাধ্যমে নোট গ্রহীতার আঙ্গুলের ছাপ এবং ছবি গ্রহণ করা হয়। কেউ একাধিকবার নোট গ্রহণ করতে এলে মেশিনটি সয়ংক্রিয়ভাবে ইতিপূর্বে গৃহীত তাঁর আঙ্গুলের ছাপের মাধ্যমে তাকে চিহ্নিত করে থাকে এবং তিনি আর দ্বিতীয়বার নতুন নোট গ্রহণ করতে পারেননা। এর ফলে মতিঝিল অফিসে নতুন নোট বিনিময়ে সুশৃঙ্খল পরিবেশ বিরাজ করছে। গতকাল গভর্নর ড. আতিউর রহমান এবং ডেপুটি গভর্নর নাজনীন সুলতানা মতিঝিল অফিসের ক্যাশ বিভাগে ডিজিটাল পদ্ধতিতে নতুন নোট বিতরণ প্রক্রিয়া সরেজমিনে পরিদর্শন করেন এবং নোট গ্রহীতাদের সাথে আলাপ করেন। নোট গ্রহীতাগণ এ বিষয়ে তাদের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কারেন্সি ম্যানেজম্যান্ট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল অফিসে নতুন নোট বিনিময়ে ডিজিটাল ডিসপ্লে বোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। এই পদ্ধতিতে নতুন টাকা বিনিময়ের আগে মানুষকে কুপন সরবরাহ করা হবে। পরে কূপনের সিরিয়াল ধরে নতুন নোটের বিনিময় হবে। পাশাপাশি নেয়া হবে আঙ্গুলের ছাপ। একাধিকবার টাকা নেওয়ার চেষ্টা করলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তা ধরা পড়বে। দালাল রুখতেই পরীক্ষামূলকভাবে এমন পদ্ধতি চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ