২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এই প্রথম আন্তর্জাতিক সালিশী আদালতের সদস্য হলেন দুই বাংলাদেশী বিচারপতি

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ বিচারপতি তোফাজ্জল ইসলাম এবং বিচারপতি আওলাদ আলী নেদারল্যান্ডসের হেগে অবস্থিত স্থায়ী সালিশী আদালতের সদস্যপদ লাভ করেছেন। এই প্রথমবারের মতো বাংলাদেশী দুই বিচারক সম্মানজনক উক্ত প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ লাভ করেছেন। রবিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

আন্তর্জাতিক বিবাদের শান্তিপূর্ণ সমাধানের লক্ষ্যে গৃহীত ১৯০৭ সালের হেগ সম্মেলনের ৪৪ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী পরবর্তী ৬ বছরের জন্য বাংলাদেশী বিচারকদ্বয়ের নিয়োগ পাওয়াকে স্থায়ী সালিশ আদালতের আন্তর্জাতিক ব্যুরো স্বাগত জানিয়েছে। এই নিয়োগ হেগে অবস্থিত আইনী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পৃক্ততার মাধ্যমে বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ যে অব্যাহত প্রচেষ্টা চালাচ্ছে তারই প্রতিফলন।

বিচারপতি তোফাজ্জল ইসলাম একজন সাবেক প্রধান বিচারপতি এবং বিচারপতি আওলাদ আলী হাইকোর্ট বিভাগের একজন প্রাক্তন বিচারপতি। বিচারপতি তোফাজ্জল ইসলাম সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী বাতিল এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনীদের শাস্তির জন্য হাইকোর্টের দেয়া রায় বহাল রাখাসহ বিভিন্ন দৃষ্টান্তমূলক বিচারের প্রধান স্থপতি। বিচারপতি আওলাদ আলী তাঁর পেশাগত জীবনে আইনজীবী হিসেবে অনেক বাণিজ্যিক সালিশী মামলা অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে পরিচালনা করেছেন। উভয় বিচারপতি তাঁদের স্ব স্ব ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতায় সমৃদ্ধ এবং সালিশী আদালতে যথাযথ অবদান রাখতে সক্ষম।

স্থায়ী সালিশী আদালত দি হেগ-এর ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা ‘পিস প্যালেস’-এ অবস্থিত ১১৭ সদস্যবিশিষ্ট একটি আন্তঃরাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান। ১৮৯৯ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন রাষ্ট্রের মধ্যে বিবদমান বিষয়সমূহের শান্তিপূর্ণ সমাধান এবং সালিশ পরিচালনা করে আসছে। এই বিচার আদালত থেকে বাংলাদেশ এবং ভারতের মধ্যকার সমুদ্রসীমা সংক্রান্ত বিবাদের নিষ্পত্তি সাধিত হয়।