২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সালমাদের পাকিস্তান সফর চূড়ান্ত

  • নারী দলের খেলা করাচীতে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের আলোচিত পাকিস্তান সফরটা তাহলে হতে যাচ্ছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিবি) সিইও নিজাম উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, সফরের সব ক’টি ম্যাচই হতে পারে করাচীতে। যদিও কাল এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত বিসিবি থেকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়নি। তবে খেলা হচ্ছে, এমন মানসিকতা বজায় রেখে কঠোর অনুশীলন করে যাচ্ছে সালমা খাতুনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় নারী ক্রিকেট দল।

‘পাকিস্তান সফর হলে সব ম্যাচই করাচীতে হবে। সেখানকার ক্রিকেট কমপ্লেক্সে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। পাকিস্তান এয়ারপোর্টে নেমে ক্রিকেটাররা সরাসরি ওই কমপ্লেক্সে চলে যাবে। সফর শেষে কমপ্লেক্স থেকে আবার সরাসরি এয়ারপোর্টে চলে আসবে। এর বাইরে তাদের কোন মুভমেন্ট থাকবে না। কারণ, কমপ্লেক্সের ভেতর সুইংমিংপুল, ডরমেটরি সবই রয়েছে। ফলে ক্রিকেটারদের হোটেলে থাকতে হবে না।’ বলেন নিজাম উদ্দিন। সম্প্রতি পাকিস্তান সফর করে এসেছে বিসিবির নিরাপত্তা পরিদর্শক দল। নিরাপত্তা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে তারা করাচী ও লাহোর পরিদর্শন করেন। তাদের প্রতিবেদনে কি উল্লেখ করা হয়েছে, এ বিষয়ে অবশ্য মুখ খোলেননি বিসিবির সিইও। কেবল জানিয়েছেন, ‘বোর্ডের ইঙ্গিত ছাড়া আর কিছু বলা সম্ভব নয়।’

সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত না হলেও যতদূর জানা গেছে, ঈদের পর ২৬ অথবা ২৭ সেপ্টেম্বর দুটি ওয়ানডে ও দুটি টি২০ খেলতে ১০ দিনের সফরে সালামদের পাকিস্তান সফর প্রায় নিশ্চিত। এ নিয়ে অবশ্য নাটক কম হয়নি। ক’দিন আগে ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআইর খবরে বলা হয়, বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল সফরে না গেলে বিপিএলে পাকিস্তানী ক্রিকেটারদের পাঠাবে না দেশটির বোর্ড (পিসিবি)! খবরে প্রকাশ, পিসিবি সালমাদের সফর নিয়ে বিসিসির সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়। এর আগে বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার বলেছিলেন, পাকিস্তানী ক্রিকেটাররা খেলছেনÑ এমন কাঠামো রেখেই প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। ‘পাকিস্তানীরা বিপিএলে খেলবে না, এমন কিছু আমাদের জানা নেই। পিসিপির সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে। ওরা আসবে এমন কাঠামো রেখেই বিপিএল আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি আফ্রিদিদের মতো তারকারা আসছেন।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘পিটিআইতে একটি রিপোর্ট এসেছে। আপনারা হয়ত সেটার কথাই বলছেন। পিটিআই কিন্তু অজানা সূত্র থেকে খবর করেছে। আমরা অজানা সূত্র বিবেচনাই করি না। এ জন্য মন্তব্য করছি না। আর বিসিবি প্রেসেিডন্ট (নাজমুল হাসান পাপন) আগেই বলেছেন, পাকিস্তানের সঙ্গে কোন শর্ত নিয়ে আলাপ হয়নি। যেগুলো (মূল জাতীয় দলের সফর নিয়ে ঝামেলা) ছিল, সেগুলো পাকিস্তান সিরিজের আগেই চুকিয়ে ফেলা হয়েছে।’ সব মিলিয়ে, এটা পরিষ্কার যে সফরটা হতে যাচ্ছে। উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ছয় বছর পর চলতি বছর জিম্বাবুইয়ে ক্রিকেট দল পাকিস্তান সফর করে। কোন অঘটন ছাড়াই সফর শেষ করে তারা। এরপরই বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলকে আমন্ত্রণ জানায় পিসিবি।

পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি সরজমিনে দেখতে বিসিবির নিরাপত্তা পরিদর্শক দল সেখানে যায়। ৫ দিনের সফরে লাহোর ও করাচী পরিদর্শন করেন তারা।

নির্বাচিত সংবাদ