১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাস্তা নেই- তবু ২২ লাখ টাকার ব্রিজ

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ খাল কিংবা রাস্তা কিছুই নেই। তারপরও সরকারী অর্থায়নে জমির মধ্যে সাড়ে ২২ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে একটি ব্রিজ। ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের এক অফিস সহকারীকে খুশি করতে তার নিজ এলাকায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অফিস সহকারী সিরাজুল হক পাইকের নিজ এলাকা উপজেলার জবসেন গ্রামে ৩৩ ফুট দৈর্ঘের ব্রিজ নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করে আগৈলঝাড়া প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস। নির্মিত ব্রিজের স্থানে খাল বা রাস্তা কোনটি না থাকলেও জমিকে ‘খাল’ দেখিয়ে ২০১৩-২০১৪ অর্থবছরে আগৈলঝাড়া-রাজিহার সড়কের বাকাল ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী জবসেন গ্রামে ওই ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। সাড়ে ২২ লাখ টাকা ব্যয়ের এ ব্রিজটি নির্মাণের কার্যাদেশ পেয়েছিল মেসার্স ইয়াসিন ট্রেডার্স নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। সরেজমিন দেখা গেছে, নির্মিত ওই ব্রিজের সঙ্গে চলাচলের নেই কোন রাস্তা। এমনকি পশ্চিম পাশে নেই কোন বসতবাড়ি। ফলে জনগণের কোন উপকারেই আসছে না নির্মিত ব্রিজটি।

স্থানীয় বাসিন্দা রহিম মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, খাল বা রাস্তা না থাকলেও তার ধান চাষের জমি নষ্ট করে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অফিস সহকারী সিরাজুল হককে খুশি করতে এ ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়েছে।

ব্রিজের পূর্বপাশের লোকজন ধান ও কাপড় শুকানো ছাড়া কেউ ওই ব্রিজে ওঠে না। স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, সরকারী অর্থের ব্রিজটি অন্য কোন জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে নির্মিত হলে জনগণ তার সুফল ভোগ করত। প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের কতিপয় কর্মকর্তার এমনই সরকারী অর্থ ব্যয় অপচয় ছাড়া আর কিছুই নয়। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) হানিফ সিকদার জানান, জমি থেকে পাকা ফসল তুলতে উল্লেখিত ব্রিজটি ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অফিস সহকারী সিরাজুল হক পাইক ব্যক্তিগতভাবে মন্ত্রণালয় থেকে পাস করিয়েছেন।

বগুড়ায় হিজড়ার রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা, সান্তাহার, ২১ সেপ্টেম্বর ॥ বগুড়ার আমদীঘিতে রহস্যজনকভাবে এক হিজড়ার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় ইউডি মামলা হয়েছে। পুলিশ সোমবার দুপুরে ওই হিজড়ার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, ছাতিয়ানগ্রাম বাজার এলাকার বাসিন্দা হিজড়া সবুজ (২২) প্রায় ৫/৬ মাস ধরে তার খালারবাড়ি জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর উপজেলার চেয়ারীগাঁও গ্রামে থাকত। রবিবার সকালে তাকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ছাতিয়ানগ্রাম বাজারে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়।

দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে হেল্প ডেস্ক চালু

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাজবাড়ী, ২১ সেপ্টেম্বর ॥ ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের যাতায়াত সুবিধার জন্য দৌলতদিয়া ফেরীঘাটে একটি হেল্প ডেক্স খোলা হয়েছে। যার মোবাইল নাম্বর ঃ-০১৭৩৫-২২৯২২৯। দেশের যে কোন স্থান থেকে যে কেউ এই নাম্বারে টেলিফোন করে ঘাটের অবস্থা জানতে পারবেন। সোমবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সভায় এ তথ্য জানানো হয়। জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে সভায় সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী, পুলিশ সুপার জিহাদুল কবিরসহ আইনশৃঙ্খলা কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় ঘরমুখো মানুষের দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ফেরী পারাপার যাতে কোন বিঘœ সৃষ্টি না হয় সে কারণে তদারকি ব্যবস্থার ওপর জোর দেয়া হয়। এছাড়া ফেরিঘাট এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।