১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মুন্সীগঞ্জে সংখ্যালঘুর জমি আত্মসাতের প্রতিবাদে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ সিরাজদিখান উপজেলায় বাসাইলে এক সংখ্যালঘুর ওয়ারিশ গোপন রেখে দুই কোটি টাকার জমি আত্মসাতের প্রতিবাদে মানববন্ধন হয়েছে। মঙ্গলবার উপজেলা পরিষদের ফটকে কর্মসূচীতে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেয়। মানববন্ধনকারী বিমল বিশ্বাস, বেদনা রানী ম-ল ও বিমলা রানী সরকার পুরো ঘটনা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। বৃদ্ধ বিমলা রানী সরকার বলেন, নিয়ামত শেখ, আতিকুর ইসলাম ও আব্দুল মান্নান শেখ গং পরস্পর যোগসাজশে ৪৪৩২ নং বানোয়াট, অস্তিত্বহীন ভুয়া দলিল তৈরি করে। সহিমোহরকৃত দলিলের নকলের ফটোকপি জমা দিয়ে ৭৮৬/১৪-১৫ নং নামজারি করে। প্রকৃত ওয়ারিশ গোপন রেখে ভুয়া ওয়ারিশের সনদ প্রদান করে জাল দলিল করে আমাকে আমার পৈত্রিক একমাত্র ওয়ারিশ হতে বঞ্চিত করেছে। তারা আমার কাকা প্রেমানন্দ ও জেঠামশাই নাগর মোহন রায়ের সম্পত্তিও জাল দলির করেছে। বিমল বিশ্বাস বলেন, আমার মায়ের নাম কুসুম কুমারী বিশ্বাস। আমার দাদু নাগড়মোহন রায়ের এক মাত্র মেয়ে আমার মা। আমার দাদু নাগর মোহন রায় কোন জায়গা বিক্রি করেন নাই। আমার দাদুর বাড়ির ৬০ শতক ও পুকুরে ৫০ শতক জায়গা আছে যার প্রকৃত মালিক আমার মা কুসুম কমারী বিশ্বাস ওয়ারিশ সূত্রে মালিক আমরা। টোল বাসাইল গ্রামের নাগর মোহনকে সবাই চিনে। তাই তারা সিরাজদিখানে জমি রেজিস্ট্রি না করে শ্রীনগর সাবরেজিস্ট্রি অফিসে ১০৪২ নং দলিল ও নবাবগঞ্জ সাবরেজিস্ট্রি অফিসে ১৮০৮নং দলিল রেজিস্ট্রি করেন। রেজিস্ট্রি আইনের ভাষ্যমতে দলিলের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সম্পত্তির একটি অংশও সাব-রেজিস্টারের রেজিস্ট্রি করার এখতিয়ার না থাকলেও ওই দলিলে তা নিয়মবহির্ভূতভাবে রেজিস্ট্রি করা হয়েছে।