২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

থাইল্যান্ডে রাজতন্ত্রের ভবিষ্যত অনিশ্চিত

প্রায় সাত দশক সিংহাসনে অধিষ্ঠিত থাকার পর থাই রাজা ভুমিবল আদুলিয়াদেজের (৮৭) স্বাস্থ্যের দ্রুত অবনতি ঘটছে। তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে রাজপ্রাসাদ থেকে ঘন ঘন মেডিক্যাল বুলেটিন প্রকাশ করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক দিনগুলোতে তার সর্বকনিষ্ঠ কন্যা মুমূর্ষু রোগীদের জন্য সাধারণত অনুসরণ করা হয় এমন বৌদ্ধ আচার মতো প্রার্থনা সভায় নেতৃত্ব দেন। রাজাই থাইল্যান্ডের অস্তিত্ব ও ঐক্যের অন্যতম মূলস্তম্ভ। রাজার স্বাস্থ্য নিয়ে দুশ্চিন্তা দেশজুড়ে উদ্বেগের ছায়াপাত করেছে। দেশটির অর্থনৈতিক পরিস্থিতি শোচনীয় এবং এটি এক সামরিক জান্তার হাতে শাসিত হচ্ছে। জান্তা গত বছর ক্ষমতা দখল করেছিল।

এ দ্বিধা-বিভক্ত দেশটি রাজার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাবোধ পোষণ করে এসেছে। কিন্তু রাজতন্ত্রের ভবিষ্যত অনিশ্চিত। রাজার উত্তরাধিকারী যুবরাজ ব্যাসনবিলাসী বলে পরিচিত এবং তাকে তার পিতার মতো জনগণের বিশ্বাস ও শ্রদ্ধা অর্জন করতে কঠিন চেষ্টা চালাতে হবে। অনেক থাই আশা করেছিল যে, যুবরাজের ভগিনী রাজকুমারী সিরিদর্ন তার পিতার স্থলাভিষিক্ত হতে পারবেন, কারণ তিনি দাতব্য কর্মকা- এবং দরিদ্রদের প্রতি সদাচরণের মধ্য দিয়ে মানুষের হৃদয় জয় করেছিলেন, কিন্তু রাজপরিবারের নিয়ম অনুযায়ী নারীরা সিংহাসনে আসীন হতে পারেন না। ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বেগ থাইল্যান্ডে কোন ধরনের রাজতন্ত্র থাকা উচিত, সেই সঙ্গে এক অত্যন্ত জটিল প্রশ্নের অবতারণা করেছে। এটি যে জটিল তার কারণ কেবল ভুমিবলের জীবদ্দশাই নয়, উপরন্তু এটাও যে, বিষয়টি নিয়ে যে কোন উন্মুক্ত আলোচনাই এক কঠোর আইন বলে গুরুতরভাবে বাধা-নিষেধ সাপেক্ষ। এ আইনে রাজা-রানী বা যুবরাজের অমর্যাদা অপমান করা বা তাকে হুমকি দেয়া অপরাধ।

আইনটি ব্যাপক অর্থে ব্যাখ্যা করা হয়। এমন খুব কমই দেখা যায়, যখন কেউ না কেউ আইনটি অধীনে দোষী সাব্যস্ত হয় এবং কারাদ-ে দ-িত হয় না। এ দ-ের মেয়াদ সর্বোচ্চ ১৫ বছর হতে পারে। কিন্তু রাজতন্ত্রের ব্যঙ্গ-বিদ্রƒপ করে মন্তব্য ও ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে নামবিহীনভাবে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়া হচ্ছে হরদম। আর রাজতন্ত্রের ঠিক ধারণাকে চ্যালেঞ্জ করেই গোপনে এক প্রজাতান্ত্রিক আন্দোলন দানা বেঁধে উঠছে। -ইন্টারন্যাশনাল নিউইর্য়ক টাইমস

নির্বাচিত সংবাদ