২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদ জামাতের জন্য প্রস্তুত ॥ জামাত শুরু সকাল ৯টা

নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ ॥ দেশের সর্ববৃহৎ ঈদগাহ ময়দান কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদ-উল-আযহার জামাতের জন্য প্রস্তুত।

ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসন ও ঈদগাহ পরিচালনা কমিটি জামাত আয়োজনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায়ও পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এবার ১৮৮তম ঈদ-উল-আযহার জামাত শুরু হবে সকাল ৯টায়। জামাতে ইমামতি করবেন আর্ন্তজাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলেম মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসউদ।

দূর-দূরান্ত থেকে মুসল্লিদের আগমনের সুবিধার্থে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ঈদের দিন দুটি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করেছে। এর মধ্যে একটি ট্রেন ভৈরব থেকে সকাল ৬টায় ছেড়ে সকাল ৮টায় পৌঁছবে। আর কিশোরগঞ্জ থেকে বেলা ১২টায় ফিরতি ট্রেনটি ভৈরব পৌছবে দুপুর ২টায়। অপর ট্রেনটি ভোর পৌনে ৬টায় ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে কিশোরগঞ্জ পৌঁছবে সকাল ৮টায়। কোরবানীর আনুষ্ঠানিকতা থাকায় রোজার ঈদের ন্যায় এ ঈদে শোলাকিয়া ঈদগাহে মুসল্লিদের সংখ্যা তুলনামূলক কম হবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন।

এদিকে মুসল্লিদের চিকিৎসার সুবিধার্থে জেলা সিভিল সার্জন অফিস ও বিভিন্ন বেসরকারী সংস্থার উদ্যোগে কয়েকটি অস্থায়ী মেডিকেল টিম ঈদগাহ মাঠের আশপাশে মোতায়েনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তাছাড়া ঈদকে সামনে রেখে ঈদগাহ মাঠের আশপাশে ও শহরের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়ে তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক ও শোলাকিয়া ঈদগাহ পরিচালনা কমিটির সভাপতি জিএসএম জাফর উল্লাহ জানান, জামাতের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। বৈরি আবহাওয়া থাকলেও মুসল্লিদের নামাজের সুবিধার্থে মাঠে পানি নিষ্কাশনসহ অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিতের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন খান জানান, মুসল্লি¬দের নির্বিঘ্নে নামাজ আদায়ের সুবিধার্থে বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাঠ ও এর বাইরে অবস্থায় করবে। এ সময় মুসল্লিদের দেহ তল্লাশিসহ বিভিন্ন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, শোলাকিয়া পরিচিত করেছে কিশোরগঞ্জকে, পরিচিত করেছে সারা দেশকে। মসনদ-ই-আলা ঈশা খাঁর ৬ষ্ঠ বংশধর দেওয়ান মান্নান দাদ খান ১৮২৮ সালে জেলা শহরের পূর্বপ্রান্তে নরসুন্দা নদীর তীরে প্রায় ৭ একর জমির উপর এ ঈদগাহ প্রতিষ্ঠা করেন।