২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যৌতুকের শিকার গৃহবধূ রিতা হাসপাতালে

নিজস্ব সংবাদদাতা, গফরগাঁও, ২৩ সেপ্টেম্বর ॥ ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে অত্যাচারী, যৌতুকলোভী স্বামীর নির্যাতনের শিকার হয়ে গফরগাঁও হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে কাতরাচ্ছেন রিতা আক্তার। এ ঘটনায় রিতা আক্তার বাদী হয়ে বুধবার সকালে গফরগাঁও থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

নির্যাতনের শিকার রিতা আক্তার জানান, উপজেলার চরআলগী ইউনিয়নের চরমছলন্দ কুড়তলীপাড়া গ্রামের মৃত সিরাজ উদ্দিনের মেয়ে রিতা আক্তারের সঙ্গে বাড়া গ্রামের মৃত মহর উদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলামের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর নির্যাতন থেকে রেহাই পেতে রিতার অভিভাবক বিদেশ যাওয়ার জন্য রফিকুলকে দুই লাখ টাকা দেন। বিয়ের সময়ও তাকে সাত ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও আসবাবপত্র দেয়া হয়। তারপরও স্বামীর নির্যাতন থেকে রেহাই পাননি রিতা। এ ঘটনায় ২০০৮ সালে গফরগাঁও থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। রফিকুল ইসলাম দেশে ফিরে এসে আগের মতোই অত্যাচার নির্যাতন করতে থাকে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে সে ফের দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। রিতা যৌতুক দিতে অস্বীকার করেন। রিতার এ কথা শোনার সঙ্গে সঙ্গে রফিকুল ইসলাম ও তার বড় ভাই আনিছুল হক, আজিজুল হক ওরফে আইজুল রিতার ওপর চড়াও হয়। তারাও তাকে মারপিট করে জখম করে। আজিজুল ও আনিছুল টানা হেঁচড়া করে রিতার পরনের শাড়ি খুলে ফেলে। তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

গফরগাঁও থানার ওসি তোফাজ্জেল হোসেন অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।