১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যুদ্ধাপরাধী বিচার ॥ পটুয়াখালীর পাঁচ রাজাকারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

  • ১ অক্টোবর ট্রাইব্যুনালে হাজির করার নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে পটুয়াখালীর ৫ রাজাকারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে আগামী ১ অক্টোবর ট্রাইব্যুনালে হাজির করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি মোঃ আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ বুধবার এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী। আসামিদের হাজির করার জন্য আইজি প্রিজন ও পুলিশের মহাপরিদর্শককে (আইজিপি) নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ সময় প্রসিকিউশনের পক্ষে ট্রাইব্যুনালে শুনানি করেন প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ, সঙ্গে ছিলেন চীফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু, প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তাপস কান্তি বল ও প্রসিকিউটর রেজিয়া সুলতানা বেগম চমন। গত ৬ সেপ্টেম্বর রাতে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের মামলায় পটুয়াখালী সদর উপজেলার ইটবাড়িয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম থেকে ওই পাঁচজনকে গ্রেফতার করে সদর থানা পুলিশ। পটুয়াখালী সদর থানার আসামিরা হলেন ইসাহাক শিকদার, আব্দুল গণি হাওলাদার, আব্দুল আওয়াল ওরফে মৌলভী আওয়াল, আব্দুস সাত্তার প্যাদা ও সুলাইমান মৃধা। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সত্যরঞ্জন রায় বলেন, তাদের প্রত্যেকের বয়স ষাটোর্ধ।

প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তাপস কান্তি বল সাংবাদিকদের বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে একাত্তরে সংঘটিত হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগসহ ৬ ধরনের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ রয়েছে যা মামলার (আইও) প্রাথমিক তদন্তে পাওয়া গেছে। তবে তারা অন্য মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন। এই অভিযোগ থেকে মানবতাবিরোধী মামলায় ট্রাইব্যুনালের অধীনে গ্রেফতার দেখিয়ে ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা বুধবার আবেদন করেন।

পরে আসামিদের (ট্রাইব্যুনালের অধীনে) গ্রেফতার দেখিয়ে ট্রাইব্যুনালে হাজির ও পরবর্তী আদেশের জন্য আগামী ১ অক্টোবর পর্যন্ত ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম মুলতবি করা হয়।