২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হবিগঞ্জ ও সিরাজগঞ্জে সংঘর্ষে নিহত তিন আহত ৪০

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ২৭ সেপ্টেম্বর ॥ মাছ ধরা নিয়ে রবিবার দুপুরে বাহুবলের করাঙ্গী নদী সংলগ্ন স্থানে দু’দল সশস্ত্র লোকের মধ্যে ভয়াবহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে সাহেদ আলী (৩০) নিহত এবং আহত হয়েছে কমপক্ষে ১৫ জন। গুরুতর আহত অবস্থায় আব্দাল মিয়া ও উজ্জ্ব¡ল মিয়াকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এবং আলেছা চান, আব্দুল করিম, আবুল কাশেম, সার বানু ও সাহেনাকে সংশ্লিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া আহত অনেককে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। পুলিশ জানায়, ওই উপজেলা সদরস্থ বাহুবল গ্রামের বাসিন্দা শাহিন মিয়া রবিবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে নিকটস্থ করাঙ্গী নদীতে মাছ ধরতে যায়। জনৈক এখলাছ মিয়া তাকে বেদম প্রহার করে। এর জের ধরে সোয়া ১টার দিকে উভয় পক্ষাবলম্বনকারী লোকজন দেশী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তুমুল সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী এই সংঘর্ষে অন্যদের সঙ্গে সাহেদ আলীও গুরুতর আহত হয়। তাকে সিলেট এমএজি হাসপাতালে নিয়ে যাবার সময় পথিমধ্যে সে মারা যায়। এদিকে প্রভাবশালী এক আওয়ামী লীগ নেতার সঙ্গে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে শনিবার হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গের নিভৃত পল্লী মৈন্দরীতে দু’পক্ষের সংঘর্ষে জনাব আলী (৪১) নামে এক কৃষক নিহত এবং আহত হয়েছে কমপক্ষে ৫০ জন। নিহত ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট গ্রামের বাসিন্দা মাহফিল মিয়ার পুত্র। গুরুতর আহত অন্তত ১৫ জনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ক’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ থেকে জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলায় ঘোড়শাল ও কামালপুর গ্রামের দুইদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আশরাফ আলী প্রামানিক (৪৫) নিহত ও এনায়েতপুর থানার এসআই আবু সাইদসহ পাঁচ পুলিশ মোট অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে শাহজাদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে ১০টি বাড়ি ভাংচুর এবং লুটপাট করা হয় ও একটি খড়ের গাদায় আগুন দেয়া হয়। পরে এলাকাবাসী আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। নিহত আশরাফ আলী প্রামাণিক এই উপজেলার ঘোড়শাল গ্রামের মৃত জেন্নাত আলী প্রামানিকের ছেলে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৬-৭ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেলে বরফ খাওয়াকে কেন্দ্র করে এই উপজেলার ঘোড়শাল গ্রামের এক কৃষকের সাথে এনায়েতপুর থানার কামালপুর গ্রামের একব্যক্তির বাকবিত-া হয়। এ নিয়ে রবিবার সকালে উভয় গ্রামের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।