২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিরিয়ায় স্থল অভিযানের পরিকল্পনা নেই ॥ পুতিন

  • আইএসবিরোধী লড়াইয়ে আঞ্চলিক সমন্বয় চায় রাশিয়া

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বলেছেন, সিরিয়ায় স্থল অভিযান চালানোর এখনই কোন পরিকল্পনা নেই মস্কোর। তবে জঙ্গী সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আঞ্চলিক ‘সমন্বয় কাঠামো’ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। পশ্চিমা দেশগুলো এবং সিরিয়ার সরকারবিরোধীরা প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের পদত্যাগের জোর দাবি জানালেও তার প্রতি সমর্থনের বিষয়টি ফের উল্লেখ করেন রুশ প্রেসিডেন্ট। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণের প্রাক্কালে পুতিন রবিবার সিবিএস টেলিভিশনের ‘সিক্সটি মিনিটস’ অনুষ্ঠানে একথা বলেন। খবর এএফপি ও বিবিসির।

অনুষ্ঠানে পুতিন বলেন, বিষয়টি এমন নয়, সেখানে এখনই হামলা চালানো হবে। সিরিয়া বা অন্য কোন দেশের ভূ-খণ্ডে কোন সামরিক অভিযানে রাশিয়া অংশ নেবে না। অন্তত এখনই আমাদের এ ধরনের অভিযান চালানোর কোন পরিকল্পনা নেই। তবে তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, প্রেসিডেন্ট আসাদ ও অন্যান্য দেশে আমাদের মিত্রদের প্রতি সমর্থন জোরদার করার বিষয় আমরা বিবেচনা করছি। সিরীয় প্রেসিডেন্টের বাহিনীগুলোই ওই এলাকার একমাত্র বৈধ নিয়মিত বাহিনী। এই বাহিনীগুলোর সেনারা সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করছে জানিয়ে তিনি বলেন, এই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যৌথ পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য একটি সাধারণ ক্ষেত্র তৈরি করা গেলে রাশিয়া সন্তুষ্ট বোধ করবে। অনুষ্ঠানে পুতিন বেসামরিক নাগরিকদের ওপর সামরিক দমনপীড়নসহ আসাদের নিষ্ঠুর কার্যকলাপের অভিযোগ নিয়েও কথা বলেন।

সামরিক শক্তি নয়, কূটনীতিই সর্বোত্তম উপায় ॥ ওবামা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, সংঘাতময় ও বিপজ্জনক বিশ্বে সামরিক শক্তি প্রয়োগ নয় কূটনৈতিক পদক্ষেপই বিশ্বের সবচেয়ে দুরূহ চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করার সর্বোত্তম উপায়। তিনি রবিবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে সমবেত বিশ্ব নেতৃবৃন্দের উদ্দেশে আরও বলেন, চরম দারদ্র্য দূর ও প্রাণঘাতী রোগের সংক্রমণ রোধ করার যৌথ ব্যবস্থার মাধ্যমে কোটি কোটি মানুষের জীবন বাঁচানো যাবে, তবে তিনি ওইসব লক্ষ্য অর্জনে নতুন উদ্যোগের কথা ঘোষণা করেননি। খবর নিউইয়র্ক টাইমস ও ওয়াশিংটন পোস্টের।

ওবামা বলেন, আসুন আজ আমরা সংশয়বাদকে দূরে ঠেলে দিয়ে যৌথ চেষ্টার মাধ্যমে যে আশাবাদ লাভ করতে পারি সেটিকেই ওপরে তুলে ধরি। আমাদের বিশ্বের নির্মম ঘটনাগুলো এবং রোগের মড়ক সত্ত্বেও যদি আমরা মনোযোগী হই এবং একসঙ্গে কাজ করি, তা হলে কোটি কোটি লোকের জীবন বাঁচানো যেতে পারে। সিরিয়া, ইরাক ও ইউক্রেনে সশস্ত্র সংঘাত এবং ইসলামিক স্টেট ও অন্যান্য চরমপন্থী সন্ত্রাসী তৎপরতার ব্যাপক হুমকিসহ চলমান সঙ্কটগুলোর মুখেও এটি ওবামার কিছুটা বিজয় অর্জনের এক মুহূর্তও বটে। রবিবার প্রেসিডেন্ট নতুন টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অনুমোদন করেন। এতে পৃথিবীকে রক্ষা করার পাশাপাশি আগামী ১৫ বছরের মধ্যে দারিদ্র্য দূর করতে চাওয়া হয়।