২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জাগরণী থিয়েটার প্রযোজনা ॥ ‘চিত্ত বিনিময়’ নাটকের উদ্বোধনী মঞ্চায়ন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একটি সুবর্ণ গোলক। স্বর্গের দেবী পার্বতী এটি লাভ করেন দেবাদিদেব মহাদেবের কাছ থেকে। গোলকটির একটি প্রধান শর্ত হলো, যদি এটি হাতবদল হয়, তাহলে চিত্ত বিনিময় হয়ে যাবে। পার্বতী এটিকে লুকিয়ে রাখার জন্য মহাদেবের ভৃত্য ভৃঙ্গির কাছে দেন। কিন্তু ভৃঙ্গির অসাবধানতার জন্য ঘটতে থাকে নানান জটিলতা। মহাদেবের আরেক ভৃত্য নন্দী ভৃঙ্গিকে বিপদে ফেলার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন ফন্দি আটে। তার কথামতো গোলকটিতে নারদের হাতে দেয়। তখন তাদের চিত্ত বিনিময় হয়ে যায়। নারদের আচরণ হয় ভৃঙ্গির মতো আর ভৃঙ্গির আচরণ হয়ে যায় নারদের মতো। নন্দি চাতুরী করে লাথি মেরে গোলকটিতে মর্তে পাঠায়। মর্তে আসার পর ঘটতে থাকে বিভিন্ন ঘটনা। মানুষ পশুতে-পশু মানুষের আচরণ, মুনিব ভৃত্য এবং ভৃত্য মুনিবে, নারী পুরুষে আবার পুরুষ নারীর আচরণ করতে থাকে। এভাবেই জীবনের অসঙ্গতিগুলো হাস্যরসের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে ‘চিত্ত বিনিময়’ নাটকটিতে।

জাগরণী থিয়েটারের ১৪তম প্রযোজনায় নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হবে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তনে আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায়। রাধারমন ঘোষের রচনায় নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন বৈদ্যনাথ অধিকারী। নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে যারা রূপদান করেছেন তারা হলেন- স্মরণ সাহা, বৈদ্যনাথ অধিকারী, শিল্পী আক্তার ঝিনুক, কাজী ফাহাদ, লিটন সাহা, রোকনুজ্জামান আপেল, সোহেব হাসনাত মিতুল, কানন মনি, জহির উদ্দিন, সাজিদ আহমেদ রনি, ইয়াসিন শাম্মি প্রমুখ। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক স্মরণ সাহা নাটকটির উপজীব্য বর্ণনার পাশাপাশি আরও জানান, আমরা ১৯৯৫ সালে সাভারে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করি। সেই থেকে সেখানের খোলা মাঠেই আমাদের নাটক মঞ্চায়ন করতে হয়। কোন কোন সময় শিল্পকলা একাডেমিতে এসেই নাটক মঞ্চায়ন করা হয়। আমাদের ওখানে নাটকের জন্য উপযুক্ত কোন মঞ্চ নেই। সাভারে নাট্যোপযোগী একটি আধুনিক মিলনায়তন হোক এটা আমাদের প্রাণের দাবি।