২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লুৎফর মোড়লকে ঢাকা মেডিক্যালে ভর্তির নির্দেশ

  • যুদ্ধাপরাধী বিচার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গ্রেফতারকৃত যশোরের লুৎফর মোড়লকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবী না থাকায় কিশোরগঞ্জের দুই সহোদর এ্যাডভোকেট শামসুদ্দিন আহম্মেদ ও ক্যাপ্টেন (অব) মোঃ নাসির উদ্দিন আহম্মেদসহ পাঁচ রাজাকারের পক্ষে শুনানির জন্য রবিবার পুনরায় দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ সোমবার এই আদেশ প্রদান করেছে। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী।

যশোরের রাজাকার লুৎফর রহমানকে সোমবার ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হলে ট্রাইব্যুনাল তাকে ঢাকা মেডিক্যালে ভর্তির নির্দেশ দেয়। উল্লেখ্য, লুৎফর মোড়ল দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ রয়েছেন। রবিবার সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ। গ্রেফতারের পর তাকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় আদালত। ৮ সেপ্টেম্বর মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আটক যশোর-৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির নেতা সাখাওয়াত হোসেনসহ ৯ রাজাকারের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) আমলে নিয়েছে ট্রাইব্যুনাল।

তার আগে লুৎফর মোড়লকে গত রবিবার সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর তাকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় আদালত। ওই মামলায় ১২ আসামির মধ্যে তিনজনের অভিযোগের প্রমাণ না পাওয়ায় তাদের অব্যাহতি দিয়েছে আদালত। অব্যাহতি প্রাপ্তরা হলেন- আকরাম হোসেন, অজিহার মোড়ল ওরফে ওজিয়ার মোড়ল ও মশিয়ার রহমান। এর মধ্যে মশিয়ার রহমান পলাতক ছিলেন। একই সঙ্গে ৯ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানির জন্য আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করা হয়েছে।

সাখাওয়াত হোসেনসহ ১২ রাজাকারের বিরুদ্ধে গত ২৬ জুলাই আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) দাখিল করে প্রসিকিউশন। ১২ আসামির মধ্যে ৩ জনের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের কোন তথ্য-প্রমাণ না পাওয়ায় তাদের অব্যাহতি দেয়া হয়। আনুষ্ঠানিক অভিযোগে একই মামলার আসামি ৯ রাজাকারের বিরুদ্ধে হত্যা-গণহত্যা, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগসহ পাঁচটি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আনা হয়।

কিশোরগঞ্জের ৫ রাজাকার ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত কিশোরগজ্ঞের দুই সহোদর এ্যাডভোকেট শামসুদ্দীন আহম্মেদ ও ক্যাপ্টেন (অব) নাসির উদ্দিন আহম্মেদসহ পাঁচ রাজাকারের পক্ষে শুনানির জন্য পুনরায় রবিবার দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। সোমবার এ্যাডভোকেট শামসুদ্দীনের আইনজীবী না আসাতে এ দিন ঠিক করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ দিন নির্ধারণ করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী। পলাতক চার আসামি হচ্ছেন শামসুদ্দীনের ভাই সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন নাসিরউদ্দিন আহমেদ, রাজাকার কমান্ডার গাজী আব্দুল মান্নান, হাফিজ উদ্দিন ও আজহারুল ইসলাম।