১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইংল্যান্ডের টাওয়ার হ্যামলেটসের উৎসবে আমন্ত্রিত ॥ স্বপ্নদলের ‘ত্রিংশ শতাব্দী’

ইংল্যান্ডের টাওয়ার হ্যামলেটসের উৎসবে আমন্ত্রিত ॥ স্বপ্নদলের ‘ত্রিংশ শতাব্দী’

সাজু আহমেদ ॥ যুদ্ধোন্মাদনার বিরুদ্ধে শৈল্পিক প্রতিবাদ, সাম্প্রতিক সময়ের স্বপ্নদলের জনপ্রিয় প্রযোজনা নাটক ‘ত্রিংশ শতাব্দী’। সরল আঙ্গিক নির্র্মাণ, সাবলীল উপস্থাপনা এবং সমসায়িক বিস্তুর কারণে ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ নাটকটি বাংলাদেশের অন্যতম সম্পদ। নিজ গুণে নাটকটি ইতোমধ্যে দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। বাংলাদেশের নাট্য আন্দোলনের অন্যতম যোদ্ধা সংগঠন স্বপ্নদলের নাট্যচর্চার বর্ণিল যাত্রা পথে ‘ত্রিংশ শতাব্দী’র সাফল্যে যুক্ত হতে যাচ্ছে আরও কিছু নতুন প্রাপ্তি। জানা গেছে, এবার ইংল্যান্ডের টাওয়ার হ্যামলেটস আয়োজিত অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ আয়োজন ‘এ সিজন অব বাংলা ড্রামা’ শীর্ষক মাসব্যাপী নাট্যোৎসবে স্বপ্নদলের ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ নাটকটি আমন্ত্রিত হয়েছে। স্বভাবতই এ সংবাদে উৎফুল্ল দলের কর্মীরা। দলের এ সাফল্যে সদস্যদের সঙ্গে সমান আনন্দিত দলের কান্ডারি জাহিদ রিপন। এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, আগামী ৬-৭ নবেম্বর লন্ডনের ব্র্যাডি আর্টস সেন্টারে আয়োজিত নাট্যোৎসবে ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ নাটকের তিনটি মঞ্চায়ন হবে। এ লক্ষ্যে স্বপ্নদলের ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ প্রযোজনার বারো সদস্যের প্রতিনিধিদল আগামী ৩ নবেম্বর ইংল্যান্ডের উদ্দেশে রওয়ানা হবে। এদিকে উৎসবে নাটক মঞ্চায়ন ছাড়াও, স্বপ্নদলের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান সম্পাদক জাহিদ রিপন স্বনামখ্যাত ‘কুইন মারি ইউনিভার্সিটি অব লন্ডন’-এর থিয়েটার বিভাগের মাস্টার্স শিক্ষার্থীদের ক্লাস পরিচালনাসহ বিবিসি এশিয়ান নেটওয়ার্ক রেডিওতে সাক্ষাতকার দেয়ার জন্য আমন্ত্রিত হয়েছেন। ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ নাটকটির মূল রচিয়তা বাদল সরকার। রূপান্তর ও নির্দেশনা দিয়েছেন স্বপ্নদলের কর্ণধার জাহিদ রিপন। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন জুয়েনা শবনম, ফজলে রাব্বী সুকর্ন, সামাদ ভূঞা, শিশির সিকদার, আমজাদ শরীফ, মোস্তাফিজুর রহমান, মাধুরী বেপারী সুমি, জেবুন নেসা, সাইদুল ইসলাম, রেজাউল মাওলা, মেহেদী রানা, তানভীর শেখ, জাহিদ রিপন প্রমুখ। ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ নাটকের মূলকাহিনী পৃথিবীর ইতিহাসের সবচেয়ে কলঙ্কজনক অধ্যায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালে জাপানের হিরোশিমা-নাগাসাকির আণবিক বোমা বিস্ফোরণের অনভিপ্রেত বিষাদময় পরিণতি। এর সমান্তরালে গুরুত্বের সঙ্গে উপস্থাপিত হয়েছে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, বসনিয়া, আফগানিস্তান, পাকিস্তান-ভারত, ইরাকে আগ্রাসন, গাজা-কুয়েত-সিরিয়া-তিউনিশিয়া-ইয়ামেন-মিয়ানমারে সাম্প্রতিক বর্বরতা প্রভৃতি প্রসঙ্গ। ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ প্রযোজনায় নানাবিধ দৃষ্টিকোণ থেকে বিশ্লেষণের মাধ্যমে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে যুদ্ধবাজ-যুদ্ধাপরাধী-অশান্তিকামীদের স্বরূপ এবং তাদের কর্মের তাৎক্ষণিক ও সুদূরপ্রসারী বীভৎসতার চিত্র উদ্ঘাটিত হয়েছে। সভ্যতা ধ্বংসকারী মানবসৃষ্ট যুদ্ধ-গণহত্যা-অনাচারের বিপরীতে মানুষ হিসেবে বর্তমান কর্তব্য অনুধাবন এবং এক্ষেত্রে দর্শককে সিদ্ধান্ত গ্রহণের মুখোমুখি স্থাপনই ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ প্রযোজনার প্রত্যাশা। প্রসঙ্গত, স্বপ্নদল ২০০২ থেকে শুরু করে ১৪ বছর যাবত নিয়মিতভাবে শান্তির স্বপক্ষে উদ্বুদ্ধকরণ ও যুদ্ধবিরোধী প্রচারসহ হিরোশিমা দিবস পালন করে আসছে। ২০১১ থেকে এ আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। দিবসটি পালনে সহযোগিতা করছে জাপান-বাংলা পিস ফাউন্ডেশন ও জাপান দূতাবাস। এ দিবসে ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ নিয়মিতভাবে মঞ্চস্থ হয়ে থাকে। পাশাপাশি চলতি বছর নয়াদিল্লীর ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা (এনএসডি)-তে অনুষ্ঠিত সম্মানজনক ভারতের রাষ্ট্রীয় নাট্যোৎসব ‘১৭তম ভারত রঙ মহোৎসব-২০১৫’-এ স্বপ্নদলের ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ নাটকটি মঞ্চায়নের পর প্রশংসা অর্জন করে। সাফল্যের ধারাবাহিকতায় ইউরোপের সুবিখ্যাত নাট্যোৎসবে দেশের প্রতিনিধিত্বকারী স্বপ্নদলের জন্য শুভ কামনা।