১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত প্রোটিয়ারা

চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত প্রোটিয়ারা

স্পোর্টস রিপোর্টা ॥ দীর্ঘ ২২ বছর পর শ্রীলঙ্কার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জিতে অনেকটা ফুরফুরে মেজাজে ভারত। বিশ্লেষকরা তবু দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে সিরিজটাকে মহেন্দ্র সিং ধোনি- বিরাট কোহলিদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবেই দেখছিলেন। যে কোন ঘারনার ক্রিকেটে প্রোটিয়ারা ভয়ঙ্কর এক দল। তার ওপর একাদশের বেশিরভাগ খেলোয়াড় আইপিএলে প্রতিনিধিত্ব করার সুবাদে এখানকার কন্ডিশনের সঙ্গেও পরিচিত। কিন্তু নিজভূমে ভারত যে সত্যিকারের বাঘ সফরের শুরুতেই সেটি টের পেল দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৮৯/৩ রানের বড় স্কোর গড়েও টি২০ প্রস্তুতি ম্যাচে তৃতীয় সারির ভারত ‘এ’ দলের কাছে ৮ উইকেটে হেরে বসে পূর্ণশক্তির ফ্যাফ ডুপ্লেসিস বাহিনী ! মায়াঙ্ক আগারওয়াল ৪৯ বলে ৮৭ ও মান ভরা ৪২ বলে ৫৬ রান করে ওপেনিংয়ে ১২.৪ ওভারেই তুলে নেন ১১৯ রান। বাকি কাজটুকু সারেন সানজু স্যামসন (৩১*) ও অধিনায়ক মানদ্বীপ সিং (১২*)। ২ বল হাতে রেখে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত ‘এ’।

তিন টি২০, পাঁচ ওয়ানডে ও চার টেস্টের দীর্ঘ সিরিজ খেলতে ভারতে পা রেখে শুরুতেই চ্যালেঞ্জ টের পেল দক্ষিণ আফ্রিকা। শুক্রবার ধর্মশালায় প্রথম টি২০ দিয়ে শুরু ময়দানী লড়াই। এ লক্ষ্যে পাহাড়ের পাদদেশের অভিনব ‘বুট ক্যাম্প’ করে প্রস্তুতি সাড়ছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। প্রোটিয়ারা অতিস্বল্পদৈর্ঘের সিরিজটিকে দেখছে টি২০ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে। আগামী বছরের শুরুতে ভারতের মাটিতে অনুষ্ঠিত হবে ছোট্ট ঘারনার শ্রেষ্ঠত্বের এ লড়াই। স্পিন সহায়ক কন্ডিশন হলেও নিজেদের শক্তির সেরা জায়গা পেস আক্রমণকে প্রাধান্য দিয়েই রণকৌশল সাজাতে চাইছেন অতিথি কোচ রাসেল ডমিঙ্গে। টি২০ অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসিস বলেন, ‘এবারের ভারত সফর নিয়ে আমরা আশাবাদী। কারণ আগামী বছর এখানেই বিশ্বকাপ খেলতে হবে। দলে কয়েকজন তরুণ ক্রিকেটার রয়েছে, যারা এই সফরের নৈপুণ্য দিয়ে বিশ্বকাপের দলে জায়গা করে নেবে। সিরিজটা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদিও প্রস্তুতি ম্যাচে বোলিং ভাল হয়নি। আমাদের দ্রুতই মানিয়ে নিতে হবে।’

প্রতিপক্ষ টি২০ দলে মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো অধিনায়ক আছেন বলে ডুপ্লেসিস আরও সতর্ক হতে চান। চ্যালেঞ্জ মানলেও আশাবাদী প্রোটিয়া কোচ। ডমিঙ্গো বলেন, ‘তারুণ্য নির্ভর দলটির অনেকেরই ভারতের মাটিতে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে।’ তিন বিশেষজ্ঞ স্পিনার নিয়ে এলেও বোলিংয়ে পেসারদের ভূমিকা রাখতে হবে বলে মনে করেন তিনি, ‘ভারতের মাটিতে স্পিন অবশ্যই ফ্যাক্টর, তবে বিশ্বের যে কোন প্রান্তে আমাদের পেসাররাও ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা রাখে।’ ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা স্পিনের বিপক্ষে ভাল বলেই ডমিঙ্গো তার পেসারদের সামনে রাখতে চান। ভিসা জটিলতায় এখন পর্যন্ত ভারতে আসতে পারেননি তারকা পেসার মরনে মরকেল। ওদিকে সফরকারীদের বিপক্ষে প্রথম টি২০তে মাঠে নামার আগে ধর্মশালায় ‘বুট ক্যাম্প’ করছে ধোনিবাহিনী। পাহাড়ের কোলে ক্যাম্প করে নিজেদের মহাত্মা গান্ধী-নেলসন ম্যান্ডেলা সিরিজের জন্য প্রস্তুত করে নিচ্ছেন।

শ্রীলঙ্কা সফর করে আসার পর থেকেই টিম ডিরেক্টর ও অন্তর্বর্তী কোচ রবি শাস্ত্রী হিমাচল প্রদেশ ক্রিকেট এ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ও বোর্ড সচিবকে জানিয়েছিলেন, তারা ধর্মশালায় বিশেষ ক্যাম্প করতে আগ্রহী। তাতে সবুজ সঙ্কেত দেয় বিসিসিআই। বেশি উচ্চতায় খেলার চিন্তা মাথায় রেখেই এমন ভাবনা। ক্রিকেটারদের মানসিক ও শারীরিক দিক দিয়ে শক্তিশালী রাখতে টিম ইন্ডিয়ার এই ব্যতিক্রম আয়োজন।