২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পরাজয়ের ‘লজ্জা’য় ডুবল বাংলাদেশ ‘এ’ দল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কত আশা ছিল, সব ম্যাচ জিতবেন মুমিনুলরা। ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে সিরিজে খেলতে ভারতে যাওয়ার আগে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেও গিয়েছিলেন, ‘সব ম্যাচ জিততে চাই।’ অথচ ভারত সফরে গিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচসহ ৫ ম্যাচের মধ্যে একটি মাত্র ম্যাচ জেতা গেছে। ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে আনঅফিসিয়াল ওয়ানডেতে হার দিয়ে শুরু হয়েছিল সফর। শেষ হলো আনঅফিসিয়াল টেস্ট ম্যাচে হার দিয়ে। তিনদিনের এ টেস্টে ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে ইনিংস ও ৩২ রানের বড় ব্যবধানেই হার হয়েছে। ভারত সফরে গিয়ে হারের ‘লজ্জা’য় ডুবেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে সিরিজে ১ ম্যাচে জিতে দুই ম্যাচে হেরে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হেরেছে। এরপর আনঅফিসিয়াল টেস্টেও হার দিয়ে ভারত সফর শেষ হয়েছে। সফরে এমনকি বাংলাদেশ ‘এ’ দল কর্ণাটকের বিপক্ষেও তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে হেরেছে! যাচ্ছে তাই অবস্থা হয়েছে।

ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে তিনদিনের ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ১৮৩ রানে পিছিয়ে পড়ার পরই স্পষ্ট হয়ে গেছে যে বড় বিপদে পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। হয়েছেও ঠিক তাই। ভারতের রঞ্জি ট্রফি চ্যাম্পিয়ন কর্ণাটকের বিপক্ষে তিনদিনের ম্যাচে হারের পর দ্বিতীয় তিনদিনের ম্যাচে ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষেও হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে মুমিনুল হকের দল। দ্বিতীয় ইনিংসে ৯ উইকেটে ১৫১ রান করার পর ইনজুরির কারণে রুবেল হোসেন ব্যাটিংয়ে নামতে না পারায় ইনিংস ও ৩২ রানের লজ্জাজনক হার সঙ্গী হয় মুমিনুল-নাসিরদের।

প্রথম ইনিংসে ১৮৩ রানে পিছিয়ে পড়ার পর সোমবার দ্বিতীয় দিন শেষে ২ উইকেটে ৩৬ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। মঙ্গলবার তৃতীয় ও শেষ দিন ২ উইকেটে ৩৬ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামার পর শুরুটা ভালই করেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক ও লিটন দাস। এই দুজন বাংলাদেশের রান ৮২ তে নিয়ে যান। তবে এরপর অভিমন্যু মিঠুন, ঈশ্বর পান্ডে ও জয়ন্ত যাদবের বোলিং তোপে পড়ে ১২০ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে সফরকারীরা। ১২০ রানে সপ্তম উইকেটের পতনের পর সাকলাইন সজিব ও শফিউল ইসলাম মিলে ৩০ রানের জুটি গড়ে দলকে ইনিংস পরাজয়ের লজ্জা থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন। তবে ১৫০ থেকে ১৫১ এই ১ রানের ব্যবধানে সাকলাইন ও জুবায়ের সাজঘরে ফিরলে এবং রুবেল হোসেন ইনজুরির কারণে মাঠে নামতে না পারায় ইনিংস ও ৩২ রানের লজ্জাজনক হার হয়।

২৫ বছরে পা দেয়ার দিনে মুমিনুল হক (৫৪) ও লিটন কুমার দাস (৩৮) ব্যাট হাতে দারুণ খেললেও দ্বিতীয় ইনিংসে চরম ব্যর্থতার পরিচয় দেন সাব্বির রহমান (০), নাসির হোসেন (১) ও শুভগত হোম চৌধুরী (০)। মূলত ৮২ থেকে ৮৭- এই ৫ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারিয়ে নিজেদের হার ডেকে আনে মুমিনুল হকের দল। শেষদিকে সাকলাইন ২১ ও শফিউল ১৩ রান করলেও তা ইনিংস হার এড়ানোর জন্য যথেষ্ট ছিল না। দ্বিতীয় ইনিংসে ভারত ‘এ’ দলের হয়ে জয়ন্ত যাদব ও ঈশ্বর পান্ডে সমান তিনটি করে উইকেট শিকার করেন।

সাব্বির রহমানের হার না মানা ১২২ রানের জবাবে বাংলাদেশ ‘এ’ দল ২২৮ রান সংগ্রহ করে। জবাবে শিখর ধাওয়ানের ১৫০ রানের অনবদ্য ইনিংসের পাশাপাশি করুন নায়ারের ৭১ ও বিজয় শঙ্করের ৮৬ রানের ইনিংসের ওপর ভর করে ৫ উইকেটে ৪১১ রান তোলে ভারত ‘এ’ ইনিংস ঘোষণা করলে ১৮৩ রানে এগিয়ে যায়।

স্কোর

বাংলাদেশ ‘এ’ ইনিংস ॥ ২২৮ এবং ১৫১/১০, ওভার ৩৯.৩ (মুমিনুল ৫৪, লিটন ৩৮; পান্ডে ৩/২৮, যাদব ৩/৪৮)। ভারত ‘এ’ ইনিংস ॥ ৪১১/৫ ইনিংস ঘোষণা (ধাওয়ান ১৫০, শঙ্কর ৮৬, নায়ার ৭১; জুবায়ের ২/৭৬, নাসির ১/৬৭)। ফল ॥ বাংলাদেশ ‘এ’ দল এক ইনিংস ও ৩২ রানে পরাজিত।