১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফরিদপুরে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, ভাংচুর

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ২৯ সেপ্টেম্বর ॥ সালতায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের দাঁড়িয়াকান্দি গ্রামে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ লাঠিপেটা ও গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ১২ জনকে আটক করা হয়েছে।

জানা যায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গট্টি ইউনিয়ন আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ মাতুব্বারের সঙ্গে উপজেলা আ. লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য নুরুদ্দীন মাতুব্বরের বিরোধ চলে আসছিল। সোমবার বিকেলে মোবাইলের মেমোরি কার্ড বেচাকেনা নিয়ে ওয়াদুদ মাতুব্বরের সমর্থক টুকু সর্দারের সঙ্গে নুরুদ্দীন মাতুব্বরের সমর্থক লাল মিয়ার কথাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরই সূত্র ধরে মঙ্গলবার সকালে উভয় পক্ষের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে উভয় পক্ষের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র ঢাল, কাতরা, সড়কি, ডেলা ও ইটপাটকেল নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে উভয় পক্ষের ১৫টি বসতবাড়িতে হামলা ও ভাংচুর করা হয়। পুলিশ লাঠিপেটা ও শর্টগানের ২১টি গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

৩ ঘণ্টাব্যাপী চলা এ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের আহতদের মধ্যে ২০ জনকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সালতা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডি এম বেলায়েত হোসেন বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শর্টগানের ২১টি গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এলাকার পরিবেশ এখন শান্ত। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ফরিদ শেখ, মঙ্গল মোল্লা, মোঃ রাশেদ, মোঃ ইচাহাক, ওহিদ খান, মোঃ আর্শেদ, মোঃ রাকিবুল, নবীন শেখ, বাবুল মাতুব্বার, অপু শেখ, ছালাম মাতুব্বার ও বতু শেখ নামে ১২ জনকে আটক করা হয়েছে।

নগরকান্দায় ১৪ বাড়ি ভাংচুর ॥ এদিকে সোমবার বিকেলে ফরিদপুরের নগরকান্দার কোদালিয়া শহীদনগর ইউনিয়নে ঈশ্বরদী গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। এ সময় ১৪টি ঘর ভাংচুর-লুটপাট করা হয়। ছাগলে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই ভাই কালাম শেখ ও হালিম শেখের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক হয়। এক পর্যায় গ্রামের লোক দুই পক্ষ হয়ে দেশীয় অস্ত্র ঢাল, সড়কি, রামদা ইট পাটকেল নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় ১৪টি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট হয়। আহত হয় ১০ জন।

বাগেরহাটে আহত ৩০

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট থেকে জানান, জেলার চিতলমারীতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নারীসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় কলাতলা ইউনিয়নের পিংগুড়িয়া গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় শেখ ও বিশ্বাস গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের চিতলমারী ও গোপালগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাহামুদ শেখ গ্রুপ ও ফরিদ বিশ্বাস গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের লোকজন ঢাল-সড়কিসহ দেশী অস্ত্র নিয়ে একে অন্যের মোকাবেলা করে।