২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অবশেষে জঙ্গী দমনে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট হচ্ছে

শংকর কুমার দে ॥ সন্ত্রাস ও জঙ্গী দমনে গঠন করা হচ্ছে পুলিশ ব্যুরো অব কাউন্টার টেররিজম ইউনিট (পিবিসিটির্)। দীর্ঘদিন ধরেই পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট গঠনের প্রক্রিয়া চলে আসছে। ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক হত্যাকা-ের ঘটনায় পুলিশের ব্যুরো অব কাউন্টার টেররিজম ইউনিট গঠনের বিষয়টি আলোচনা হয়েছে। প্রযুক্তি নির্ভর গোয়েন্দা কার্যক্রমের পাশাপাশি তদন্ত কাজও চালাবে পুলিশের এই ইউনিট। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

সূত্র জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআইয়ের আদলে সন্ত্রাস ও জঙ্গী দমনে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট গঠনের প্রক্রিয়া চালানো হয়। কিন্তু দীর্ঘদিনেও এই ইউনিটটি গঠন না করা হলেও বর্তমান প্রেক্ষাপটে আবার এই চৌকস ইউনিটটি গঠনের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি আলোচনা হয়।

সূত্র জানান, ২০০৯ সালের শেষের দিকে এর প্রক্রিয়া শুরু হলেও অর্থাভাবসহ নানা কারণে এই ইউনিট গঠনের প্রক্রিয়া চলে ধীরগতিতে। সন্ত্রাস, জঙ্গী ও সাইবার অপরাধ দমনে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে পুলিশের এই ইউনিটকে। ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক খুনের ঘটনার সরকারের উচ্চ পর্যায়ে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট গঠনের ঝুলে থাকা প্রস্তাবটি নিয়েও আলোচনা হয়। বিশেষ করে কয়েকজন ব্লগার খুনের ঘটনার সময়ে এই ইউনিট গঠনের বিষয়টি আলোচনার টেবিলে আসে। সন্ত্রাস ও জঙ্গী দমনের লক্ষ্যে প্রস্তাবিত এই চৌকস বাহিনী কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কার্যক্রম শুরু হলে অনেকাংশে এ ধরনের অপরাধ হ্রাস পেয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্র জানান, ২০০৯ সালের ১৫ নবেম্বর কাউন্টার টেররিজম ইউনিট গঠন করতে পুলিশ সদর দফতর থেকে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। যাচাই-বাছাই শেষে প্রস্তাবটি অর্থ মন্ত্রণালয়ে আটকে দেয়। তারপর থেকে নানা কারণেই এর প্রয়োজনীয়তার অনুভব তীব্রভাবে অনুভব না করলেও এখন বর্তমান প্রেক্ষাপটে আবার কাউন্টার টেররিজম ইউনিট চালু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ফোর্সের বা এফবিবিআইয়ের আদলে এই ইউনিট গঠন করা হলে সন্ত্রাস, জঙ্গী ও সাইবার অপরাধ দমনে আরও দক্ষতা দেখানো সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেই ধরনের এন্টিটেররিজম সংস্থা গঠন করা হয়েছে সেই আদলে দেশে ন্যাশনাল ব্যুরো অব কাউন্টার টেররিজম ইউনিট গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে। পৃথিবীর উন্নত দেশসমূহে এন্টিটেররিজম সংস্থা যেভাবে জঙ্গী তৎপরতা ও সন্ত্রাসী কর্মকা- দমনে সফল ভূমিকা রাখার জন্য কর্মকৌশল প্রণয়ন করেছে দেশেও অনুরূপভাবে সফল ভূমিকা রাখতে পারে সেই দিকটাকে বিবেচনায় অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। ক্রমাবনতিশীল আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ক্রমোন্নয়নে সাফল্যজনক ভূমিকা পালন করবে প্রস্তাবিত ন্যাশনাল পুলিশ ব্যুরো অব কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক খুনের পূর্বাপর প্রেক্ষাপটে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটটি গঠনের বিষয়টি আলোচনা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, খুব অল্প সময়ের মধ্যে এই ইউনিটটি চালু করা সম্ভবপর হবে বলে জানান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্মকর্তা।