১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গৃহবধূর মুখে এ্যাসিড নিক্ষেপ

কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গৃহবধূর মুখে এ্যাসিড নিক্ষেপ

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুষ্টিয়া, ১ অক্টোবর ॥ পরকীয়ায় রাজি না হওয়ায় কুষ্টিয়ায় প্রকাশ্য দিবালোকে এক গৃহবধূর মুখে এ্যাসিড নিক্ষেপ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমারখালী উপজেলার শেরকান্দি এলাকায়। এ্যাসিড দগ্ধ ওই গৃহবধূর নাম জুলিয়া খাতুন (৩৫)। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের হোগালা গ্রামের ব্যবসায়ী আব্দুর রহিমের স্ত্রী।

এ্যাসিড দগ্ধ গৃহবধূ জুলিয়া খাতুন বলেন, প্রায় চার মাস যাবত শেরকান্দি এলাকার একটি ভাড়া বাড়িতে বসবাস করছেন তিনি। বেশ কিছুদিন যাবত প্রতিবেশী আবুল কালামের বিবাহিত ছেলে আলামিন (৩০) তার মুঠোফোনে কল দিয়ে পরকীয়াসহ কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এ কারণে সে আলামিনের মুঠোফোন নম্বরটি পরে ব্লকলিস্টে রাখে। পরে আলামিন নতুন আরেকটি নম্বর দিয়ে জুলিয়াকে ফোন দিয়ে উত্ত্যক্ত করে। এ সময় তাদের মধ্যে বাগ্বিত-াও হয়। এ ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার বাড়ি থেকে দোকানে যাওয়ার সময় ইঞ্জেকশনের সিরিঞ্জের সাহায্যে তাকে লক্ষ্য করে এ্যাসিড নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায় আলামিন। এ সময় জুলিয়ার চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে ক্ষতস্থানে পানি ঢালেন এবং তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

শেরকান্দি এলাকার ভাড়া বাসা থেকে পাশের দোকানে যাওয়ার সময় জুলিয়ার ওপর একই এলাকার আলামিন এ্যাসিড নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। আলামিন বিভিন্ন সময়ে জুলিয়াকে উত্ত্যক্ত করত। এর জের ধরেই এ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আকুল উদ্দিন জানান, এ্যাসিড আক্রান্ত ওই গৃহবধূর মুখের একাংশ এবং পিঠ ও ঘাড় দগ্ধ হয়েছে। এ্যাসিড হামলার পর কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার প্রলয় চিসিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং গৃহবধূ জুলিয়া খাতুনের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় তিনি তদন্তপূর্বক এ্যাসিড নিক্ষেপের কারণ উদ্ঘাটন এবং এ্যাসিড নিক্ষেপকারীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন। তবে এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি।