২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফিফা-এএফসির দ্বারস্থ অস্ট্রেলিয়া

  • নিরাপত্তা অজুহাতে নবেম্বরে বাংলাদেশে ;###;বিশ্বকাপ বাছাই ম্যাচ খেলতে আপত্তি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ সফরে আসছে না অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল তা নিশ্চিত হয়ে গেছে। অফিসিয়ালি ইতোমধ্যেই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) কাছ থেকে সেটা জানানো হয়েছে। আগেই তাদের কার্যক্রম থেকে পরিষ্কার বোঝা গিয়েছিল যে, অসি ক্রিকেটাররা সিরিজ বাতিলই করতে যাচ্ছে। এবার ফুটবলেও এর প্রভাব পড়তে যাচ্ছে। গত মাসে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলের বাছাই ম্যাচ অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে খেলে এসেছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। আগামী নবেম্বরে অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ফুটবল দলের বাংলাদেশে খেলতে আসার কথা। কিন্তু সেটাও হওয়া এখন শঙ্কার মুখে। এর পেছনে মূল কারণ নিরাপত্তা আশঙ্কা। বাংলাদেশে এ বছর অনেকগুলো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও ফুটবল ম্যাচ নির্বিঘেœ অনুষ্ঠিত হলেও অসি ক্রিকেট দল আসেনি নির্দিষ্ট সময়ে নিরাপত্তা শঙ্কার কথা জানিয়ে। আর একই শঙ্কার কথা এবার বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (ফিফা) কাছে জানিয়েছে ফুটবল ফেডারেশন অস্ট্রেলিয়া (এফএফএ)। আর সেটা অফিসিয়ালি ফিফা ও এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনকে (এএফসি) জানানোর কারণে এখন ঢাকায় ১৭ নবেম্বর পূর্বসূচী অনুসারে বাংলাদেশে খেলতে আসাটা শঙ্কার মুখে পড়েছে।

ইতোমধ্যে বাংলাদেশে বিশ্বকাপ বাছাই ম্যাচ খেলে গেছে কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান ও জর্দান। আর বাংলাদেশ দল খেলতে গেছে শুধু অস্ট্রেলিয়ায়। এবার ফিরতি লেগে মুখোমুখি হবে দলগুলো পরস্পরের। হোম এ্যান্ড এ্যাওয়ে ভিত্তিতে হওয়া বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এবার বাংলাদেশ দল যাবে কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান ও জর্দানে। আর অস্ট্রেলিয়া আসবে বাংলাদেশে। কিন্তু জঙ্গী হামলা হতে পারে এমন শঙ্কার কথা জানিয়ে নির্দিষ্ট সময়ে বাংলাদেশে আসেনি। শেষ পর্যন্ত না আসার সম্ভাবনাই প্রবল। তবে ফুটবল ম্যাচটা হতে এখনও দেড় মাস বাকি। এত আগেভাগে বাংলাদেশের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তোলাটা আসলে বিস্ময়করই বলা যেতে পারে। কিন্তু এফএফএ এখন থেকেই বাছাই ম্যাচটি খেলতে আসার বিষয়টি নিয়ে চিন্তা-ভাবনা শুরু করে দিয়েছে। বৃহস্পতিবার সেই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে শঙ্কাটা বেড়েছে আরও বেশি। কারণ ফিফার কাছে বাংলাদেশের নিরাপত্তাহীনতার বিষয়টি জানিয়েছে এফএফএ।

২৮ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের। দুই টেস্টের সিরিজ শুরু হওয়ার কথা ৯ অক্টোবর। কিন্তু দেশটির এক গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টের ভিত্তিতে নির্দিষ্ট সময়ে সফরে আসার বিষয়টি স্থগিত করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। ডিপার্টমেন্ট অব ফরেন এ্যাফেয়ার্স এ্যান্ড ট্রেডের (ডিএফএটি) সতর্ক করে বাংলাদেশ সফরে আসলে জঙ্গী হামলার শিকার হতে পারে অসি ক্রিকেটাররা। এজন্য সিএ নিরপত্তা পর্যবেক্ষক দলও বাংলাদেশ সফর করেছে। তবে তাদের প্রতিবেদন দেখে এখন পর্যন্ত সফরের বিষয়ে কিছু জানায়নি সিএ। কিন্তু জাতীয় দলের অধীনে থাকা ক্রিকেটারদের যার যার রাজ্য দলে ফিরিয়ে দিয়েছে তারা। সেখান থেকেই স্পষ্ট হয়ে গেছে যে বাংলাদেশ সফরে আসছে না অসিরা। তাছাড়া অস্ট্রেলিয়া সরকার তাদের গোয়েন্দা প্রতিবেদনের জন্য বড় ধরনের হাওয়াও পেয়েছে। তিনদিন আগে বাংলাদেশের রাজধানীতে এক ইতালিয়ান নাগরিককে দুর্বৃত্তরা গুলি করে হত্যা করেছে। আর সেটার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট গ্রুপ (আইএস) জঙ্গীরা। ফলে নিরাপত্তা হুমকিটাও বেড়েছে। এ বিষয়ে এফএফএ বলেছে, ‘বাংলাদেশের নিরাপত্তা হুমকি নিয়ে এফএফএ শঙ্কিত এবং ডিএফএটি, সংশ্লিষ্ট সরকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ ও নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। এফএফএ আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি ফিফা ও এএফসিকে জানিয়েছে।’ আর এই আনুষ্ঠানিকভাবে ফিফা ও এএফসিকে জানানোর কারণেই এখন ১৭ নবেম্বর অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ ম্যাচ ঢাকায় অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে শঙ্কার।