২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কাছে ওয়াসিমের আবদার

  • পাক-ভারত সিরিজ চান এ কিংবদন্তি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সময় ঘনিয়ে আসছে, কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন সুরাহা হয়নি। আগামী ডিসেম্বরে আরব আমিরাতে পাকিস্তান-ভারত ক্রিকেট সিরিজ হওয়ার কথা থাকলেও সে বিষয়ে কিছু জানায়নি ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। তবে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) অব্যাহতভাবেই চাপ দিয়ে যাচ্ছে। শেষ পর্যন্ত বিরক্ত হয়ে পাকিস্তান টি২০ দলের অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি বলেছিলেন, ‘পাক-ভারত সিরিজ হওয়া জরুরী কিছু নয়। তারা না চাইলে এত জোরাজুরির কিছু নেই।’ তবে দেশটির কিংবদন্তি অলরাউন্ডার ওয়াসিম আকরাম মনে করছেন পাক-ভারত সিরিজ হওয়াটা অতীব জরুরী। এ জন্য তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে আবেদন জানিয়েছেন পাকিস্তানের সঙ্গে ক্রিকেট খেলা বয়কট প্রত্যাহার করার। কারণ এতে করে বিশ্বের ক্রিকেটানুরাগীরা আহত হচ্ছেন।

২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে ক্ষুদ্র পরিসরের একটি সিরিজ খেলতে ভারত সফরে গিয়েছিল পাকিস্তান ক্রিকেট দল। গত বছর উভয় দেশের বোর্ড সম্মত হয় এবং চুক্তি স্বাক্ষর করে ২০২২ সালের মধ্যে অন্তত ৬টি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজনের। ২০০৭ সালের পর থেকে কোন দ্বিপাক্ষিক পূর্ণাঙ্গ সিরিজ হয়নি দু’দেশের মধ্যে। কিন্তু স্বল্প সময়ে ২০১২ সালের শেষে ভারত সফরের ফিরতি হিসেবে আগামী ডিসেম্বরে আরব আমিরাতে সিরিজ চায় পিসিবি। তবে সেটা এখন পর্যন্ত বিসিসিআই নিশ্চিত করেনি। মূলত ২০০৮ সালে মুম্বাইয়ে জঙ্গী হামলায় বেশ কিছু প্রাণহানির ঘটনার পর থেকেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অধিকাংশ ক্রীড়া ইভেন্ট স্থগিত রেখেছে ভারত। ওই হামলা পাকিস্তানী জঙ্গীরা সংঘটিত করেছিল। ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে সীমান্ত উত্তেজনা চিরাচরিত নিয়ম হয়ে গেছে। আর সে কারণে দু’দেশের মধ্যে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক সম্পর্কে আছে ধারাবাহিক টানাপোড়েন। বর্তমানে সেই অস্থিতিশীলতা কিছুটা বেড়েছে। বিতর্কিত অঞ্চল কাশ্মীর নিয়ে দু’দেশের মধ্যে সম্প্রতি আবারও উত্তেজনা বেড়েছে। সে কারণে এর প্রভাব কূটনৈতিক সম্পর্কের বেড়াজাল কেটে আছড়ে পড়েছে ক্রিকেটেও। যে কারণে ক্রিকেট সিরিজ নিয়মিত হচ্ছে না দু’দলের মধ্যে। আসন্ন প্রস্তাবিত সিরিজটাও তাই শঙ্কার মুখে।

৪৯ বছর বয়সী ওয়াসিম মনে করেন রাজনৈতিক সমস্যা খেলার মাঠে আসবে না। তার প্রত্যাশা এ বিষয়ে ভারত প্রধানমন্ত্রী সবুজ সঙ্কেত দেবেন। ওয়াসিম বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী মোদিকে এ সফরটিকে অনুমোদন দেয়ার অনুরোধ করছি। আমি শুনেছি তিনি তার মন্ত্রিপরিষদকে বলেছেন পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলার বিষয়ে কোন সমস্যা নেই। কারণ তিনিও চান ক্রিকেট আরও ছড়িয়ে পড়ুক। আমি যেটা মনে করি প্রধানমন্ত্রী মোদি ভারতকে পরাশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে বেশ মনোযোগী। আর তারা ইতোমধ্যেই ক্রিকেট পরাশক্তি হিসেবে বহির্বিশ্বের অন্য দলগুলোর উন্নতির দিকে সহযোগিতা করাটা দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। সুতরাং আমি মনে করি তিনি সিরিজটাকে অনুমোদন দেবেন।’ ওয়াসিম মনে করেন বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে আকর্ষণীয় লড়াই হচ্ছে পাক-ভারত ক্রিকেট। কিন্তু সেটার অনুপস্থিতি বিশ্বক্রিকেটকে বঞ্চিত করছে। কিংবদন্তি এ পেসার বলেন, ‘এটা বিশ্বক্রিকেটের একটা বড় ক্ষতি। ভারত-পাকিস্তান লড়াইটা চিরপ্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। আমিও বেড়ে উঠেছিলাম পাক-ভারত ক্রিকেট ম্যাচে খেলার স্বপ্ন নিয়ে।’ এ সময় ওয়াসিম ১৯৯৯ সালের ভারত সফরের বিষয়টি স্মরণ করেন। সে সময় নিরাপত্তা হুমকি প্রবল থাকলেও তার নেতৃত্বে পাকিস্তান দল ভারতে খেলতে গিয়েছিল। আবার ২০০৪ সালে ভারতীয় দলও নিরাপত্তা শঙ্কার মধ্যেই পাকিস্তান সফর করেছিল।