১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শরণখোলায় পোষ্যভাতা পাচ্ছে না ৫৬ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ॥ শরণখোলায় সরকার ঘোষিত পোষ্যভাতা পাচ্ছে না ৫৬ জন মুক্তিযোদ্ধার পরিবার। ২০১৩-২০১৪ অর্থবছরে প্রত্যেক পরিবারের নামে ৬১ হাজার টাকা করে বরাদ্দ হলেও অজ্ঞাত কারণে তা উত্তোলন করতে পারছেন না বলে তারা অভিযোগ করেছেন। ফলে অসহায় ও অস্বচ্ছল এ পরিবারগুলোর মানবেতর দিন কাটাতে হচ্ছে। শুক্রবার দুপুর ১২টায় শরণখোলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অসহায় পরিবারের লোকজন দ্রুত ভাতা প্রদানের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন। মৃত মুক্তিযোদ্ধা আঃ আজিজ খানের ছেলে মৌজালী খান লিখিত বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ২০১৩-২০১৪ অর্থবছরে উপজেলার ৫৬ মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ও সন্তানের নামে ভাতা বরাদ্দ হয়। পরবর্তীতে ওই তালিকা জেলা প্রশাসকের অনুমোদন হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে আসে। প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ও সন্তানের নামে বরাদ্দ দেয়া হয় ৬১ হাজার টাকা করে। এ বছরের ১২ জানুয়ারি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সমাজসেবা কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত ওই ৫৬ জনের একটি ডিওলেটার সোনালী ব্যাংক রায়েন্দা বাজার শাখায় পাঠানো হয়। নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেকের নামে ব্যাংক এ্যাকাউন্ট ও পাস বইও খোলা হয়। কিন্তু ভাতা উত্তোলনের জন্য ব্যাংকে গেলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানায়, তাদের নামে কোন টাকা আসেনি। এ ব্যাপারে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার এমএ খালেক খান বলেন, ভাতা বরাদ্দের বিষয়টি সঠিক নয়। তবে, শীঘ্রই তারা ভাতা পাবেন বলে জানা গেছে।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মঞ্জুরুল হাসান বলেন, ৫৬ মুক্তিযোদ্ধার ভাতার ব্যাপারে একটি সুপারিশ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। যাচাই-বাছাই শেষে তাদের নামে অর্থ বরাদ্দ হবে। এখন পর্যন্ত কারও নামেই ভাতার টাকা বরাদ্দ হয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ইউসুফ আলী শিকদার, বর্তমান ডেপুটি কমান্ডার হেমায়েত উদ্দিন বাদশা, মুক্তিযোদ্ধা হারুন অর রশিদসহ মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের স্ত্রী-সন্তানরা উপস্থিত ছিলেন।