২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রত্যাশিতভাবে আছেন রোনাল্ডো মেসি

প্রত্যাশিতভাবে আছেন  রোনাল্ডো  মেসি
  • ফিফা ব্যালন ডি’অরের প্রাথমিক তালিকা প্রকাশ, শুরুতে আছেন ৫৯ ফুটবলার, রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সিলোনা থেকে জায়গা পেয়েছেন সর্বোচ্চ ৭ জন করে, ইংল্যান্ডের আছে মাত্র দুইজন-ওয়েন রুনি ও হ্যারি কেন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বর্তমান বিশ্বসেরা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। ২০১৫ সালের সেরা কে হবেন তা জানা যাবে আগামী বছরের জানুয়ারিতে। বিষয়টি নিয়ে আবারও শুরু হয়ে গেল আলোচনা আর গুঞ্জন। এখন সবার মুখে একটাই প্রশ্ন- কে জিতবেন পরবর্তী ফিফা ব্যালন ডি’অর।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের উদ্ধৃতিতে জানা গেছে, শুক্রবার ২০১৫ সালের ফিফা ব্যালন ডি’অরের জন্য ৫৯ জনের প্রাথমিক তালিকা ঘোষণা করা হয়েছে। এই তালিকায় প্রত্যাশিত ও অনুমিতভাবেই আছেন বর্তমান বিজয়ী ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, চারবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী লিওনেল মেসি, নেইমার, লুইস সুয়ারেজ, রবার্ট লেভানডোস্কি, ওয়েন রুনিসহ অনেকে। প্রত্যাশিত নাম যেমন আছে, তেমনি চমক জাগানো কিছু নামও আছে তালিকায়। ৫৯ জনের প্রাথমিক তালিকা থেকে সংখ্যাটা ২৩ জনে নামিয়ে আনা হবে। এরপর প্রকাশ করা হবে তিনজনের সংক্ষিপ্ত তালিকা। সেখান থেকে আগামী জানুয়ারিতে সুইজারল্যান্ডের জুরিখে চূড়ান্ত বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে।

ব্যালন ডি’অর পুরস্কারের জন্য ফিফার ২০৯ সদস্য দেশের জাতীয় দলের অধিনায়ক, কোচ ও একজন ক্রীড়া সাংবাদিকের ভোট দিয়ে থাকেন। ফিফা ফুটবল কমিটির সদস্যবৃন্দ এবং ফ্রান্স ফুটবলের একটি বিশেষজ্ঞ দল যৌথভাবে ২৩ পুরুষ খেলোয়াড়ের একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা করেন। সেখান থেকে ভোটাররা তাদের শীর্ষ তিনজনকে বাছাই করে ভোট দেন। প্রত্যেক ফিফা সদস্য রাষ্ট্র থেকে তিনজন ভোটার থাকবেন। একজন সাংবাদিক, জাতীয় পুরুষ দলের কোচ ও অধিনায়ক। প্রত্যেক ভোটার নিজের প্রথম (৫ পয়েন্ট), দ্বিতীয় (৩ পয়েন্ট) ও তৃতীয় (১ পয়েন্ট) পছন্দের খেলোয়াড়কে ভোট দেন। তাদের ভোট জনসমক্ষে প্রকাশ করা হয়। এরপর প্রকাশ করা হয় তিনজনের সংক্ষিপ্ত তালিকা। যেখান থেকে সেরাদের নাম ঘোষণা করা হয়।

ব্যালন ডি’অরের প্রবর্তন ১৯৫৬ সাল থেকে। ২০০৯ সাল পর্যন্ত এ পুরস্কার দেয়া হয়। আর ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কারের প্রবর্তন ১৯৯১ সাল থেকে। ২০১০ সাল থেকে এ দুটি পুরস্কারকে একীভূত করা হয়। যার নাম দেয়া হয়েছে ফিফা ব্যালন ডি’অর। ২০০৯ সালে সর্বশেষ ব্যালন ডি’অর জয় করেন মেসি। ওই বছর ফিফা বর্ষসেরাও হন বার্সিলোনা ডায়মন্ড। ২০১০ সাল থেকে প্রচলিত ফিফা ব্যালন ডি’অরের এবার ষষ্ঠ পালা।

প্রথম তিনবার গৌরবময় এ পুরস্কার বাজিমাত করেন মেসি। পরের দুইবার রোনাল্ডো। সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত চারবার ফিফা সেরা হয়েছেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। তিনবার করে ব্যালন ডি’অর জয়ের রেকর্ড রয়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো (২০০৮, ২০১৩, ২০১৪), হল্যান্ডের জোহান ক্রুয়েফ (১৯৭১, ১৯৭৩, ১৯৭৪), ফ্রান্সের মিশেল প্লাতিনি (১৯৮৩, ১৯৮৪, ১৯৮৫) ও হল্যান্ডের মার্কো ভ্যান বাস্তেইনের (১৯৮৮, ১৯৮৯, ১৯৯২)। ফিফা বর্ষসেরা তিনবার করে জয়ের রেকর্ড রয়েছে ব্রাজিলের কিংবদন্তি রোনাল্ডো ও ফ্রান্সের জিনেদিন জিদানের। রোনাল্ডো সেরার মুকুট পরেন ১৯৯৬, ১৯৯৭, ২০০২ সালে। জিদান সবার সেরা হন ১৯৯৮, ২০০০, ২০০৩ সালে। এছাড়া ব্রাজিলের আরেক সুপারস্টার রোনাল্ডিনহো দু’বার ফিফা বর্ষসেরা হওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

এবারের প্রাথমিক তালিকায় রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সিলোনা থেকে সর্বোচ্চ সাত জন করে ফুটবলার জায়গা পেয়েছেন। অবাক করা বিষয় হচ্ছে, ইংল্যান্ডের মাত্র দুইজন আছেন এই তালিকায়। এরা হলেনÑ ইংলিশ অধিনায়ক ওয়েন রুনি ও হ্যারি কেন। গত ছয় বছর ধরে মর্যাদাপূর্ণ এ এ্যাওয়ার্ডটি মেসি ও রোনাল্ডো ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, এবারও এই দু’জনের বাইরে যাচ্ছে না গৌরবময় এই পুরস্কার। এক্ষেত্রে এগিয়ে আছেন মেসিই। কেননা গত মৌসুমে বার্সিলোনার হয়ে ট্রেবল জিতেছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। শুধু তাই নয়, ব্রাজিল বিশ্বকাপ ও কোপা আমেরিকায় মেসির আর্জেন্টিনা হয়েছে রানার্সআপ। এক্ষেত্রে মেসির প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী রোনাল্ডো গত মৌসুমে জিততে পারেননি একটি ট্রফিও।