২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশের শুভসূচনা রাব্বি-জনির ঝলক

  • এএফসি ১৯ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্ব বাংলাদেশ ২-০ শ্রীলঙ্কা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সম্প্রতি নেপালের কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠিত অনুর্ধ ১৯ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে থেকে বাংলাদেশ বিদায় নিয়েছিল সেমিফাইনাল থেকে। এবার ঘরের মাঠে তরুণ ফুটবলারদের সামনে আরেকটি চ্যালেঞ্জ। শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাওয়া এএফসি ১৯ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে সাফল্য পেতে মরিয়া বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ জাতীয় ফুটবল দলের শুরুটা মন্দ হয়নি। প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা অনুর্ধ ১৯ জাতীয় ফুটবল দলকে তারা হারিয়েছে। তবে জয়টা এত সহজে আসেনি। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে কষ্টার্জিত এ জয়ের স্কোরলাইন ছিল ২-০। গোল দুটি করেন ফরোয়ার্ড মান্নাফ রাব্বি এবং মিডফিল্ডার- অধিনায়ক মাসুক মিয়া জনি। বাংলাদেশের পরের ম্যাচ ৪ অক্টোবর, ভুটানের বিপক্ষে, সন্ধ্যা ৬টায়। স্কোরলাইন দেখেই বোঝা যাচ্ছে, ম্যাচটি ছিল যথেষ্ট প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। হাজার সাতেক দর্শকের উপস্থিতিতে প্রাণবন্ত ফুটবল খেলে জয় কুড়িয়ে নেয় বাংলাদেশ দল।

এ আসরের বাছাইপর্বের ম্যাচগুলোকে নিজেদের প্রমাণের মঞ্চ হিসেবে দেখছে বাংলাদেশ। তাদের লক্ষ্য অন্তত গ্রুপ রানার্সআপ হওয়া। সে জন্য প্রথম দুই ম্যাচে জয়ের বিকল্প ভাবছে না স্বাগতিকরা। লঙ্কাকে হারিয়ে আপাতত অর্ধেক পথ অতিক্রম করল টিটুর শিষ্যরা।

১৩ মিনিটে বাংলাদেশের ইব্রাহিমের কর্নার থেকে বক্সে বল পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেননি একাধিক ফুটবলার। ২০ মিনিটে রোহিত সরকারের কর্নার থেকে বক্সে বল পেয়ে বাঁ প্রান্ত থেকে মান্নাফ রাব্বির হেড লঙ্কান গোলরক্ষক বল ফিস্ট করলে ফিরতি বলে আবারও শট নেন ইব্রাহিম।

কিন্তু বল লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৩২ মিনিটে বক্সে বল পেয়েও গোলের সহজ সুযোগ নষ্ট করেন রাব্বি। ৪৯ মিনিটে ডানপ্রান্ত থেকে রাব্বির ক্রসে বক্সে ডিফেন্ডাররা ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলেও বল পান রোহিত। তীব্র শট নিলেও প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক ধরে ফেলেন। ৬৭ মিনিটে ইব্রাহিমের ফ্রি কিক রোহিত বক্সে পেয়ে শট নিলে ডিফেন্ডারদের গায়ে লেগে ফেরত আসে।

ফিরতি বলে শটে লঙ্কার জালে বল পাঠান রাব্বি (১-০)। ৮৩ মিনিটে ইব্রাহিমের শট বক্সের মধ্যে লঙ্কান অধিনায়ক দানুশকা মধুশঙ্কার হাতে লাগলে পেনাল্টির নির্দেশ দেন রেফারি ওমানের আব্দুল্লাহ মোহামেদ আল হিলালি। বাংলাদেশের অধিনায়ক মাসুক মিয়া জনি পেনাল্টি থেকে গোল করতে কোন সমস্যা হয়নি। (২-০)।

এ আসরের বাছাইপর্বের দশটি গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন এবং সেরা পাঁচটি রানার্সআপ দল চূড়ান্তপর্বে খেলার সুযোগ পাবে। আগামী বছর বাহরাইনে হবে চূড়ান্তপর্ব।

বাংলাদেশের বর্তমান যুবদলটি বাফুফে ফুটবল একাডেমি ও অন্যান্য বয়সভিত্তিক পর্যায়ের খেলোয়াড়দের নিয়ে গড়া হয়েছে। খুব বেশি অনুশীলন ম্যাচ খেলতে পারেনি দলটি, মাত্র একটা ম্যাচ (জাতীয় দলের বিপক্ষে) খেলেছে।