২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভবিষ্যতে তাকাতে চান বুলবুল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ স্থগিত হওয়া অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফর নিয়ে হতাশা প্রকাশ করলেও শিক্ষাটা ভবিষ্যতে কাজে লাগাতে হবে বলে মনে করে সাবেক অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুল। সিরিজটা টেস্ট হওয়ায় আক্ষেপটা একটু বেশিই দেশের প্রথম স্টেট সেঞ্চুরিয়ানের। অস্ট্রেলিয়ার মতো বড় দলের সঙ্গে টেস্ট খেলার সুযোগ যে সহসা আসে না। বুলবুল বলেন, ‘একজন নাগরিক হিসেবেও আমার কখনও মনে হয়নি এমন কিছু। দেশে সবকিছু এখন খুব স্বাভাবিক আছে। বরং টি২০ বিশ্বকাপ, এশিয়া কাপের সময় রাজনৈতিক অস্থিরতা ছিল, অনেক সমস্যা দেখেছি, এখন তো সেসবের কিছুই নেই।’

এক সময়ের তুমুল জনপ্রিয় ক্রিকেটার আরও যোগ করেন, ‘আমরা এমনিই টেস্ট কম খেলি। অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের সঙ্গে দুটি টেস্ট খেলার সুযোগ ছিল। আমাদের দলের অবস্থাও ভাল, সবাই ইনফর্ম। সেই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারতাম। ভাবছিলাম, আমাদের ক্রিকেটটা এই জায়গা থেকেই দ্বিতীয় ধাপে যাবে বা আরেকটি সিঁড়ি পার হবে। কেননা ওয়ানডেতে বড় বড় দলকে হারিয়েছি, হোয়াইটওয়াশ করেছি। অস্ট্রেলিয়া একেবারে তরুণ একটা দল- এই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে আমাদের ক্রিকেকটাকে আরও উপরে নিয়ে যেতে পারতাম। তবু আশাবাদী যে বাতিল নয়, সিরিজ স্থগিত করা হয়েছে। শীঘ্রই হয়তো আলোচনার মাধ্যমে টেস্ট দুটো আয়োজন করা যাবে।’

অতীতের উদাহরণ টেনে বুলবুল বলেন, ‘রাজনৈতিক পরিস্থিতি যখন খারাপ ছিল, অস্থিরতা ছিল তখন ক্রিকেট হয়েছে। এমনকি হরতালের মাঝেও। আমাদের দেশে ক্রিকেটকে কেউ আঘাত করে না। ক্রিকেট হচ্ছে সবার ভালবাসার একটা জায়গা। সেই জায়গা থেকে বলব, ক্রিকেট সবসময় এখানে নিরাপদ। এটা আমাদের শুধু বিশ্বের কাছে প্রমাণ করা যে, ক্রিকেট যে খেলতে আসে তার কোন অসুবিধা হবে না। সত্যিকার অর্থে বললে, আমাদের দেশ তো এখন দারুণভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। কোন সমস্যা নেই।’ সামনে তাকাতে চান বিচক্ষণ এই ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব, ‘সামনে বিপিএল আছে, জিম্বাবুইয়ে আসবে, ইংল্যান্ড আসবে। আমাদের শুধু প্রমাণ করতে হবে, কাগজে কলমে অনুভব করছি, আমরা নিরাপদ। আসলেই এখানে কোন ঝামেলা নেই। পাশের দেশগুলোর চেয়ে অনেক ভাল অবস্থানে আছি আমরাÑ কূটনৈতিভাবে এটাই প্রমাণ করতে হবে।’

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে সুন্দর সম্পর্কটাও ধরে রাখার পক্ষে বুলবুল, ‘ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের ক্রিকেট সম্পর্ক বহুদিনের। তারা আমাদের গেম এডুকেশন, কোচ দিয়ে বিভিন্নভাবে সাহায্য করেছে। সম্পর্কটা যেন ঠিক থাকে। আমরা যেন ইতিবাচকভাবে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারি। ঠিক কোথায় সমস্যা সেটা যদি চিহ্নিত করতে পারি, সেই জায়গার ত্রুটি আমাদের কাটিয়ে উঠতে হবে।’