২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধের দাবি জাতীয় কমিটির

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীতে চলাচলরত বাস ও মিনিবাসসহ বিভিন্ন ধরনের গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি। এই ভাড়া-সন্ত্রাস ঠেকাতে অবিলম্বে ভ্রাম্যমান আদালতের কার্যক্রম জোরদার ও জুলুম করে সাধারণ যাত্রীদের কাছ থেকে বেআইনিভাবে ভাড়া আদায়কারী সংশ্লিষ্ট পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। শনিবারএক যুক্ত বিবৃতিতে সংগঠনের উপদেষ্টা প্রবীণ রাজনীতিবিদ ও বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা মনজুরুল আহসান খান এবং সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে এই দাবি জানান।

সড়ক পরিবহন সেক্টরে চরম নৈরাজ্য বিরাজ করছে উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয়, রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির কারণে সরকার রাজধানী ও আশেপাশে চলাচলকারী বাস-মিনিবাসের ভাড়া পুনর্নির্ধারণ করেছে। তবে অধিকাংশ বাস ও মিনিবাসে সরকার নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা টানানো হয়নি। পরিবহন শ্রমিকেরা জোর করে যাত্রীদের কাছ থেকে নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত আদায় করছেন। এছাড়া লেগুনা ও হিউম্যান হলারসহ বিভিন্ন নামের ক্ষুদ্র যানবাহনগুলোও ইচ্ছামাফিক বাড়তি ভাড়া নিচ্ছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

রাজধানীর গণপরিবহনে যাত্রীসেবার মান অত্যন্ত নাজুক দাবি করে বিবৃতিদাতারা বলেন, অধিকাংশ বাস- মিনিবাসে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) নির্দেশনা উপেক্ষা করে অতিরিক্ত আসন সংযোজন করা হয়েছে। এছাড়া মোটরযান আইনের সংশ্লিষ্ট বিধি লঙ্ঘন করে মালিকরা ২০ বছরের পুরান লক্কড়-ঝক্কড় বাস-মিনিবাস চালাচ্ছেন। ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এগুলো জব্দ করে রুট পারমিট বাতিল ও মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের দাবি জানানো হয় বিবৃতিতে।