২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মনোনয়ন দৌড়ে হিলারির সঙ্গে পাল্লা দিতে পারেন অপরিচিত সান্ডার্স

  • মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

নাজনীন আখতার ॥ মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদ প্রার্থিতায় জনপ্রিয়তায় পিছিয়ে থাকলেও নির্বাচনী তহবিল সংগ্রহে বিস্ময়করভাবে উত্থান ঘটেছে বার্নি সান্ডার্সের। ৫ মাসে তিনি এক মিলিয়ন অনলাইন ডোনেশন পেয়েছেন, যা বর্তমান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রথমবার নির্বাচনী প্রচারের সময়ের যুগান্তকারী ডিজিটাল তহবিল দাতাদের তুলনায় বেশি।

শুক্রবার দি নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে দেয়া হয়েছে এ তথ্য। তার নির্বাচনী প্রচার কার্যালয় থেকে বলা হয়েছে, গত বুধবার রাতে সান্ডার্সের তহবিল দাঁড়িয়েছে ২৬ মিলিয়ন ডলারে। গত জুলাই মাস থেকে এ পর্যন্ত এ পরিমাণ অর্থ সংগ্রহ হয়েছে। অথচ ১ আগস্টের হিসাব অনুযায়ী সান্ডার্সের সংগ্রহ ছিল ১৫.২ মিলিয়ন ডলার। এছাড়া গত ৫ মাসে তার তহবিলে এক মিলিয়ন অনলাইন ডোনেশন এসেছে। ২০০৮ সালের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার জন্য ২০০৭ সালে এই সময় পর্যন্ত বারাক ওবামার নির্বাচনী প্রচারের জন্য যত ডোনেশন এসেছিল একই সময়ে তার থেকেও বেশি পরিমাণ ডোনেশন এসেছে ডেমোক্র্যাটিক দলের অন্যতম প্রার্থী বার্নি সান্ডার্সের। আর পিছিয়ে থেকেও দ্রুতগতিতে এভাবে তহবিল সংগ্রহ করতে পারার জন্য সান্ডার্স ডেমোক্র্যাটিক দলের সবচেয়ে শক্তিশালী মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের সঙ্গে সমপ্রতিযোগিতায় চলে আসতে পারেন বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা। হিলারি ক্লিনটনের নির্বাচনী তহবিলে জমা পড়েছে ৪৭ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার। তবে অতিরিক্ত ব্যয়ের কারণে তার হাতে এখন রয়েছে ২৮ মিলিয়ন ডলারের কিছু বেশি।

উল্লেখ্য, নির্বাচনী ব্যয় নির্বাহের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীরা রাজনৈতিক এ্যাকশন কমিটির মাধ্যমে সদস্য বা অন্য দাতাদের কাছ থেকে অর্থ নিয়ে থাকেন। সেই অর্থ দিয়েই নির্বাচনী প্রচার সংক্রান্ত ব্যয়ের তহবিল গঠন করা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডেমোক্র্যাটিক দলের হয়ে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন। ভাইস-প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা না দিলেও জনপ্রিয়তা নিরিখের বিভিন্ন জরিপে উঠে আসছে তার নামও। সেখানে ভারমন্টের সিনেটর বার্নি সান্ডার্স হয়ে রয়েছেন লো প্রোফাইল। প্রথম অবস্থায় রাজনৈতিক বিশ্লেষণে তাকে ‘অলঙ্কার’সদৃশ প্রার্থী হিসাবেই গণ্য করা হয়েছিল। ধারণা করা হচ্ছিল শুধু হিলারিকে পুশ করার জন্যই তার প্রার্থিতা। তবে তহবিল সংগ্রহে দ্রুতগতিতা এবং ব্যতিক্রমী কৌশল গ্রহণ তার প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা নিয়ে নতুন করে ভাবছে মার্কিন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।