২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ডিজাইনার কঙ্গনা

ডিজাইনার কঙ্গনা

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ তাঁর অভিনয়ের জাদুতে মুগ্ধ বলিউড। এই মুহূর্তে কঙ্গনার একের পর এক চলচ্চিত্র বক্স অফিসে সাফল্য পাচ্ছে। বলিউডের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিকও পান তিনি। এক একটি চলচ্চিত্রের জন্য তিনি পান ১১ কোটি টাকা! কিন্তু হঠাৎই রোল চেঞ্জ করলেন কঙ্গনা রানাওয়াত। অভিনেত্রী থেকে হয়ে গেলেন ডিজাইনার! ইউরোপিয়ান ব্র্যান্ড ভেরো মোডার সঙ্গে হাত মিলিয়ে নিজস্ব ডিজাইনের পোশাক এ বার বাজারে আনতে যাচ্ছেন এই অভিনেত্রী। যার পোশাকী নাম ‘ভেরে মোডা মারকিউয়ি বাই কঙ্গনা রানাওয়াত’। সব রকমের পোশাকই ডিজাইন করেছেন বলিউডের কুইন। তাঁর কালেকশনে পাওয়া যাবে ক্যাজুয়াল ওয়্যার, ফর্মাল ওয়্যার। পাশাপাশি পার্টিতে পরার জন্য রকমারি ডিজাইনার কালেকশন তো থাকছেই। কিন্তু কেন তাঁর এই রোল চেঞ্জ? হঠাৎ অভিনয় ছেড়ে পোশাক ডিজাইনে এলেন কেন তিনি? কঙ্গনার কথায়, এটা আমার অনেক দিনের ইচ্ছে ছিল। আমার ডিজাইন দেখলে আমার স্টাইল স্টেটমেন্ট ভাল করে বুঝতে পারবেন। তবে নিন্দুকেরও কথা বলার বিরাম নেই। তাঁদের মতে, ‘কাট্টি বাট্টি’ চলচ্চিত্রের পর আর কোন ভাল চরিত্রের অফার পাচ্ছেন না নায়িকা। আর বলিউডের ইঁদুর দৌড়ে হাঁপিয়েও উঠেছেন তিনি। তাই সব দিক বজায় রাখতেই অন্য পেশাতেও নিজের ইনভলভমেন্ট বাড়াচ্ছেন তিনি। সত্যিই কি তাই? উত্তর দেবে সময়। এদিকে সপ্তাহখানেক আগে খবর রটেছিল সালমান খানকে ইদানীং একেবারেই সহ্য করতে পারছেন না কঙ্গনা রানাওয়াত। তাঁর সামনে সল্লু মিঞার কথা উঠলেই রেগে যাচ্ছেন নায়িকা! ইন্ডাস্ট্রিতে অনেকেই বলছেন, সাম্প্রতিক ‘কাট্টি বাট্টি’ চলচ্চিত্রে কঙ্গনা অভিনয় করেছেন সালমানেরই জন্য। সালমানের অনুরোধেই ওই চলচ্চিত্রে সই করেছিলেন তিনি। প্রথম দিকে এ সব কথার বেশ সহজ উত্তরই দিচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু চলচ্চিত্র মুক্তির পর এ সব কথা শুনে সকলের সামনেই রাগ দেখাচ্ছেন কঙ্গনা। মুখের ওপর বলে দিচ্ছেন, এ সব কথা অনেক শুনেছি। এখন তো চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে। আর সালমানের কথা আপনাদের মুখে শুনতে চাই না। ঠিক কী ঘটেছিল? যার জন্য সালমানের নাম শুনলেই রেগে উঠছেন কঙ্গনা? জানা গেছে, ‘কুইন’, ‘তনু ওয়েডস্ মনু রিটার্নস’এর পর মহিলা কেন্দ্রিক চরিত্র করতে করতে তখন ক্লান্ত কঙ্গনা। প্রায় একই ধরনের অভিনয়ে বেশ হাঁপিয়ে উঠেছেন তিনি। সে সময়ই তাঁর কাছে ‘কাট্টি বাট্টি’র অফার আসে। তিনি নিউইয়র্কে থাকাকালীন সলমন নিজে ফোন করে চিত্রনাট্য শোনার জন্য অনুরোধ করেন। তার পরই এতে সই করেন নায়িকা। কিন্তু এখন অনেকে বলছেন, সালমানের অনুরোধ ফেলতে পারেননি কঙ্গনা। তাই এমনও হতে পারে চরিত্র অপছন্দ হলেও তাতে রাজি হতে হয়েছে। এ সব শুনেই রেগে গিয়েছেন তিনি। নায়িকার কথায়, সালমান আমার বন্ধু। আমি ওকে বিশ্বাস করি। ও এই কাজের কথা আমাকে প্রথম বলে ঠিকই। কিন্তু কোন চাপে আমি রাজি হইনি। আমার চিত্রনাট্যটা ভাল লেগেছে। তাই কাজটা করেছি। আপাতত সব বলিউডি গসিপকে এক ঝটকায় থামিয়ে দিয়ে আপাতত সালমান নিয়ে আর কোন কথাই বলতে চান না কঙ্গনা।