২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্ষমা চাইলেন ‘সিআর সেভেন’

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ নতুন রেকর্ডের মালিক হয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগীজ ফরোয়ার্ড ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। ক্লাবের পক্ষে সর্বকালের সবচেয়ে বেশি গোল করার রেকর্ড গড়েছেন তিনি। দলের অন্যতম নির্ভরতা সিআর সেভেনকে তাই এমন অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মানিত করেছে স্পেনের স্বনামধন্য এ ক্লাবটিকে। শুক্রবার সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে অনুষ্ঠিত বর্ণাঢ্য আয়োজনে নিজের পরিবার-পরিজন ও বন্ধুদের নিয়ে উপস্থিত রোনাল্ডোকে দেয়া হয় একটি সুদৃশ্য ট্রফি। তবে এখনও ক্লাবের সাবেক গোলরক্ষক প্যাকো বায়ো মনে করেন রিয়াল কখনও একজন রোনাল্ডোর ওপর নির্ভরশীল দল হতে পারে না। তবে চলতি আসরেও রিয়াল যতগুলো গোল করেছে তার অর্ধেকই এসেছে রোনাল্ডোর পা থেকে এবং চ্যাম্পিয়ন্স লীগের রেকর্ড ৮২ গোল করে তিনি সবার চেয়ে এগিয়ে। তিনবার ফিফা বর্ষসেরা হওয়া এ পর্তুগীজ তারকার সঙ্গে অবশ্য মিডিয়াকর্মীদের সম্পর্কে আছে টানাপোড়েন। বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন। এ কারণে তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন তাদের কাছে। তিনি এ সময় স্বীকার করেছেন বিভিন্ন সময়ে যে দুর্ব্যবহার করেছেন সেটা শুধু অসদাচরণই ছিল না, পাশাপাশি নির্লজ্জতা ছিল।

গত বুধবার ইউরোপের সেরা ক্লাব আসর চ্যাম্পিয়ন্স লীগে মালমোর বিরুদ্ধে ২-০ গোলে জয় পায় রিয়াল। ওই ম্যাচে গোল করে তিনি ছাড়িয়ে যান রাউল গঞ্জালেজকে। বর্তমানে রিয়ালের হয়ে সবধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে সিআর সেভেনের গোলসংখ্যা ৩২৪। মাত্র ৩০৮ ম্যাচ খেলেছেন তিনি। অথচ রাউল ৩২৩ গোল করেছিলেন ৭৪১ ম্যাচ খেলে। জাতীয় দল ও ক্লাবের হয়ে সবমিলিয়ে ৫০১ গোলের মালিক তিনি। গৌরবময় এমন অর্জনের মধ্যে আছে আবার চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ইতিহাসে সর্বাধিক ব্যক্তিগত ৮২ গোল করার রেকর্ড। তার অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী বার্সিলোনার আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসির চেয়ে ৫ গোল এগিয়ে তিনি। যে ক্লাবকে এত গোল উপহার দিয়েছেন তারাও ভোলেনি রোনাল্ডোকে সম্মানিত করতে। নতুন এ অর্জনের জন্য সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সিআর সেভেনের নিকটাত্মীয়, পরিজন ও বন্ধুদের আমন্ত্রণ করে পুরস্কৃত করেছে রিয়াল। আর এখানেই মিডিয়াকর্মীদের কাছে অতীতে বাজে ব্যবহারের জন্য ক্ষমা চাইলেন রোনাল্ডো। তিনি বলেন, ‘আমি অনেক আনন্দিত, সতীর্থদের অনেক ধন্যবাদ। তারা ব্যতীত আমার পক্ষে এই স্মরণীয় অর্জন সম্ভব হতো না। তাছাড়া আমার সকল কোচকে ধন্যবাদ। তারা সবসময়ই আমাকে সহায়তা করেছেন। আমি মিডিয়াকেও অনেক ধন্যবাদ জানাই। কারণ আমি জানি অতীতে কিছুটা নির্লজ্জ আচরণ করেছি তাদের সঙ্গে। কিন্তু তবু তারা আমার সঙ্গে থেকেছেন। আমি বাজে আচরণের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

দলের কোচ রাফায়েল বেনিতেজ সবসময়ই আশা প্রকাশ করেছেন রোনাল্ডোর পাশাপাশি দলের অন্যরাও জ্বলে উঠবে এবং নিজেরা গোল করার পাশাপাশি রোনাল্ডোকে গোল করার জন্য সহায়ক ভূমিকা রাখবে। চলতি মৌসুমে এখন পর্যন্ত ২০ গোল করেছে রিয়াল। এরমধ্যে রোনাল্ডোর পা থেকেই এসেছে অর্ধেকের বেশি। তবে কি পুরোপুরি রোনাল্ডোনির্ভর হয়ে পড়েছে রিয়াল? কিন্তু তা মানতে নারাজ সাবেক রিয়াল গোলরক্ষক বায়ো। তিনি বলেন, ‘ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর ওপর কোন নির্ভরশীলতা নেই। উদাহরণ হিসেবে বলতে পারি, ২০১৩-১৪ মৌসুমের কোপা দেল রে জিতেছিল রিয়াল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সাকে হারিয়ে, যে ম্যাচে রোনাল্ডো খেলেননি। সুতরাং রোনাল্ডোর ওপর নির্ভরতার কোন বিষয়ই নেই। আমার মনে হয় এমনটা বার্সাতেও। সেখানেও কোন মেসি নির্ভরতা নেই। তারা শুধুই দু’জন খেলোয়াড় এবং দুর্দান্ত ফর্মে আছেন। কাজেই তারা না খেললে একটা অভাববোধ হওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু রোনাল্ডো যদি নাও খেলেন সেক্ষেত্রে রিয়ালে আছে বেল, রড্রিগুয়েজ, মডরিক, বেঞ্জেমা... এরকম অনেকে।’

অবশ্য এসব আলোচনা নিয়ে তেমন ভ্রƒক্ষেপ নেই রোনাল্ডোর। তাছাড়া একটি বিতর্কিত গোল রোনাল্ডোকে দেয়া নিয়েও আছে গুঞ্জন। সেসবে মনোযোগ না দিয়ে রোনাল্ডো মনে করছেন রাউল ও আলফ্রেডো ডি স্টেফানোদের কাতারে আসতে পারাটাই গৌরবের। তিনি বলেন, ‘আমার জন্য এ পুরস্কার পাওয়া অনেক সম্মানের। আমি যখন প্রথম এ জার্সিটি পরেছি কখনও ধারণা করতে পারিনি যে, একদিন ক্লাবের সর্বাধিক গোলদাতা হতে পারব। আর সেটা যে রাউল ও স্টেফানোকে ছাড়িয়ে যাওয়ার মতো যথেষ্ট হবে সেটাও র্ছিল কল্পনার বাইরে। কিন্তু সেটা করতে পেরে এখন আমি অনেক আনন্দিত। আমি এজন্য আমার বন্ধুদের, জর্জ মেন্ডেস ও আমার মায়ের প্রতি কৃতজ্ঞ। আর এই অসাধারণ আয়োজনের উদ্যোক্তা, রিয়ালের প্রেসিডেন্টের প্রতি ধন্যবাদ জানাই।’

নির্বাচিত সংবাদ