২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফেসবুকে কটূক্তি ॥ দুই ছাত্রলীগ কর্মী ছুরিকাহত

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ ফেসবুকে কটূক্তির জের ধরে শুক্রবার রাত আড়াইটায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল হাসপাতালে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগের দুইকর্মী আহত হয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় একজনকে ঢাকা বক্ষব্যাধি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সিলেট ওসমানী হাসপাতালে অপরজনের শরীরে অস্ত্রোপচার হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ হাসপাতাল থেকে চারজনকে আটক করেছে। সড়ক দুর্ঘটনায় সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক মোস্তাক আহমদ পলাশ আহত এবং তার স্ত্রী ও ছেলে নিহত হওয়ার ঘটনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কটূক্তির জের ধরে এ ঘটনা ঘটে। ছুরিকাঘাতে আহতরা হলেন- ছাত্রলীগকর্মী ফাহাদ আহমদ ও কামরান হোসেন খান। এর মধ্যে ফাহাদকে পিঠে ছোরাবিদ্ধ অবস্থায় ঢাকা বক্ষব্যাধি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জানা যায় ঢাকা থেকে ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাক আহমদ পলাশের স্ত্রী ও ছেলে মারা যান। পলাশ নিজেও গুরুতর আহত হন। ইফতেখার মালিক তানভীর নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে আহত পলাশের ছবি দিয়ে স্ট্যাটাস দেয়া হয় ‘আল্লাহর বিচার আল্লাহ করেন, থ্যাংকস গড’। এই স্ট্যাটাস দেখে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়। কিছু সময় পর স্ট্যাটাসদাতা তানভীরকেও তারা পেয়ে যান ওই হাসপাতালের আইসিইউ বিভাগের বাইরের বারান্দায়। তখন তার কাছে এরকম স্ট্যাটাস দেয়ার কৈফিয়ত চাইলে তানভীর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে।

এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তানভীরের মামা পরিচয়দানকারী মাহবুব নামের আরেক যুবক সেখানে উপস্থিত হন। তিনিও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করতে থাকেন। একপর্যায়ে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী মাহবুবকে ধাওয়া করেন। কিছুদূর যাওয়ার পর তানভীর ও মাহবুবের সহযোগীরা ছাত্রলীগকর্মী ফাহাদ ও কামরানের ওপর হামলা চালিয়ে ছুরিকাঘাত করে।

সাতক্ষীরায় জমিয়তে আহলে হাদীস নেতাকে অপহরণের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা ॥ জেলা জমিয়তে আহলে হাদীসের সেক্রেটারি ও কেন্দ্রীয় জমিয়তে আহলে হাদীসের যুগ্ম-সম্পাদক অধ্যাপক মাওলানা ওবায়দুল্লাহ গয্নফরের সন্ধান চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার পরিবার ও তার সংগঠনের নেতারা। শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে ওবায়দুল্লাহ গয্নফর মেয়ে প্রভাষক মাহমুদা আখতারী মুন্নি তার পিতাকে অপহরণের অভিযোগ করে বলেন, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সাতক্ষীরা-যশোর সড়কের কলারোয়া উপজেলার তুলশিডাঙ্গা এলাকা থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা একটি মাইক্রোবাসযোগে তাকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। এরপর থেকে তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে শুক্রবার বিকেলে পরিবারের পক্ষ থেকে অপহরণের ঘটনা উল্লেখ করে মেয়ে মাহমুদা আখতারী কলারোয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তার পিতা ওবায়দুল্লাহ গয্নফর ও অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা খলিলুর রহমানের সঙ্গে মোটরসাইকেলযোগে বাঁগআচড়া বোডখানায় যাচ্ছিল। জমিয়তে আহলে হাদীসের একটি সাংগঠনিক সম্মেলনে যোগ দেয়ার জন্য তিনি বাড়ি থেকে রওনা হন। কলারোয়ার তুলশিডাঙ্গা এলাকায় পৌঁছানোর পর পিছন দিক থেকে পরপর ২টি মাইক্রোবাস এসে তার গতিরোধ করে। এ সময় তিনি মোটরসাইকেল থামালে সাদা পোশাকধারী কয়েকজন ব্যক্তি ওই মাইক্রোবাস থেকে বেরিয়ে এসে তার হাতে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে দ্রুত যশোরের দিকে চলে যায়। এরপর থেকে তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।

দিনাজপুরে একই ঘরে দুই বোনের আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ হাকিমপুর উপজেলার বোয়ালদাড় গ্রামে দুই বোন একসঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। দিনাজপুর পুলিশ শুক্রবার রাতে নিজ বাড়ির কক্ষে তারা একসঙ্গে গলায় ফাঁস দেয়। এরা হলো, আমেনা খাতুন (১৮) ও ছোট বোন জেসমিন আক্তার (১৪)। আমেনা গৃহিণী ও জেসমিন নবম শ্রেণীর ছাত্রী। তারা এই গ্রামের আইনুল হকের মেয়ে। বোয়ালদাড় ইউপি চেয়ারম্যান শাহাদত হোসেন এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। শনিবার সকালে দুই বোনের লাশ উদ্ধার করা হয়।

মা ইলিশ ধরায় জেল

নিজস্ব সংবাদদাতা, লক্ষ্মীপুর, ৩ অক্টোবর ॥ মেঘনা নদীতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ ধরার অপরাধে ৪৮ মৎস্যজীবীকে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে জেল-জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার দুপুরে তাদের এ সাজা দেন। এর আগে শুক্রবার রাত থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত সদর উপজেলার মেঘনা নদীর মজু চৌধুরীর হাট, রামগতি ও কমলনগরের মতির হাট মাছ ঘাটসহ বিভিন্ন স্থানে স্থানীয় মৎস্য বিভাগ, কোস্টগার্ড অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করে।

মাদক বিক্রেতাদের আত্মসমর্পণ

স্টাফ রিপোর্টার, ঈশ্বরদী ॥ সাঁড়া মাজদিয়া মাদ্রাসা মাঠে মাদক বিক্রেতা ‘অনুতাপ ও আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় শনিবার বিকেলে। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন পুলিশ সুপার আলমগীর কবীর। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) সিদ্দিকুর রহমান, সহকারী পরিচালক মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর পাবনা আবুল হাসেম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম সেলিম। অনুষ্ঠানে মাদক বিক্রেতা নেহারুল, শামসুল ম-লসহ ২৪জন আত্মসমর্পণ করে।