২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাওনা টাকা চাওয়ায় বিধবাকে বেঁধে রেখে নির্যাতন, ছুরিকাঘাত

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ ৩ অক্টোবর ॥ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের লোকজন আনোয়ারা বেগম নামে এক বিধবাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে বেঁধে রেখে ছুরিকাঘাতসহ শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার তারাব পৌরসভার খাদুন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে । নির্যাতনের শিকার আনোয়ারা বেগম খাদুন এলাকার মৃত মাজু মোল্লার স্ত্রী। তাকে গুরুতর অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

নির্যাতিত আনোয়ারা বেগম জানান, ১১ মাস আগে ৬ কাঠা জমি ক্রয়ের উদ্দেশ্যে পার্শ্ববতী খিদিরপুর এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে মাহাবুবকে বায়না বাবদ ১৯ লাখ টাকা দেন বিধবা আনোয়ারা বেগম। এরপর থেকে জমি রেজিস্ট্রি করে না দিয়ে মাসের পর মাস ঘুরাতে থাকে। আনোয়ারা বেগম খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ওই জমির ওপর আদালতে মামলা রয়েছে। পরে তিনি বায়না দেয়া ১৯ লাখ টাকা ফেরত চান। মাসখানেক আগে মাহাবুব বায়নানামা মূল দলিলটি কৌশলে আনোয়ারা বেগমের কাছ থেকে নিয়ে নেন। আনোয়ারা বেগমের চাপের মুখে বায়না দলিলটি দেই দিচ্ছি করে ঘুরাতে থাকে মাহাবুব। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে বিধবা আনোয়ারা বেগমকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মাহাবুবের বাড়ির একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে দেয়। এরপর ঘরে বেঁধে রেখে ডান হাতে ছুরিকাঘাত করে। এক পর্যায়ে হাতুড়ি ও লোহার রড দিয়ে পুরো শরীর রক্তাক্ত জখম করে। শুধু তাই নয়, বায়নাকৃত ১৯ লাখ টাকা চাওয়া হলে ওই বিধবাকে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। এক পর্যায়ে আনোয়ারা বেগমের ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে আনোয়ারা বেগমকে উদ্ধার করে। গত ৩ বছর আগে আনোয়ারা বেগমের স্বামী মাজু মোল্লাকে হত্যা করা হয়। ওই হত্যা মামলার আসামিদের সঙ্গে মাহাবুবসহ নির্যাতনকারীদের সুসম্পর্ক রয়েছে বলেও দাবি করেন আনোয়ারা বেগম। এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত এ ধরনের ঘটনার অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নির্বাচিত সংবাদ