১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদেশী হত্যাকাণ্ড সুপরিকল্পিত ॥ প্রধানমন্ত্রী

বিদেশী হত্যাকাণ্ড সুপরিকল্পিত ॥ প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দুই বিদেশী নাগরিকের হত্যাকাণ্ড সুপরিকল্পিত। তবে খুনীরা ধরা পড়বে এবং তাদের বিচারও হবে। আর দুটি হত্যাকাণ্ডের কারণে সরকারের সব অর্জন ধ্বংস হয়ে যাবে- এমন মনে করার কোন কারণ নেই বলেও তিনি জনগণকে সচেতন হতে বলেছেন। আজ রবিবার গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র সফর সম্পর্কে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন প্রধানমন্ত্রী। পরে প্রশ্নোত্তর পর্বের শুরুতে দুই বিদেশী নাগরিকের হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে একটি দৈনিক পত্রিকার সম্পাদকের প্রশ্নের জবাবে মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা যুদ্ধাপরাধী, তাদের যখন বিচার করছেন, তারাই স্বাধীনতার পর রাজত্ব করেছে করেছে পঁচাত্তরের পর ২১ বছর- এটা ভুলে যাবেন না। তারাই ক্ষমতা্য় ছিল। আজকে যখন তার বিচার করছি, তার কিছু রিঅ্যাকশন তো হবেই।”

ইতালিয়ান নাগরিক হত্যা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘চারটা গুলির একটাও মিস হয়নি। তাহলে এটা সুপরিকল্পিত।’ বিএনপির এক নেতার কিছু বক্তব্য ও এরপর তার যে প্রতিক্রিয়া, তা মিলিয়ে নিলেই এ রহস্যের উত্তর পাওয়া যাবে।

নিরাপত্তার অজুহাতে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট টিমের বাংলাদেশে না আসার বিষয়েও মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।তিনি বলেন, ‘তাদের দেশে (অস্ট্রেলিয়া) সম্প্রতি গোলাগুলিতে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। আমেরিকার একটি কলেজেও গুলিতে দশজন মারা গেছে। তারা কী তাদের দেশে রেড এলার্ট ঘোষণা করেছে?’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ছোট ভূখণ্ড। আমেরিকার ৫২ স্টেটের একটা স্টেটের সমান বাংলাদেশ। আমেরিকায় ভাইস প্রেসিডেন্ট নাজমুলকে রাস্তায় হত্যা করা হয়েছে। কানেকটিকেটে আমাদের যু্গ্ম সাধারণ সম্পাদককে হত্যা করা হয়েছে। সেখানে প্রতিনিয়ত ট্যাক্সিচালক খুন হয়েছে। মিডিয়া কিন্তু এসব হাইলাইট করে না। এখানে একটা ঘটনা ঘটলে আমরা খুব সেনসিটিভ হয়ে যাই, মনে হয় সব অর্জন হারিয়ে গেল। আমরা মানসিক দৈন্যতায় ভুগি।’

গত সোমবার রাজধানীর গুলশানে গুলি করে হত্যা করা হয় ইতালিয়ান নাগরিক সিজার ও শনিবার রংপুরে মুখোশধারীদের গুলিতে মারা যান জাপানী নাগরিক হোচি কোনিও। দুই বিদেশী খুনের দায়ভার স্বীকার করে টুইট করেছে ইসলামিক স্টেট বা আইএস।

প্রশ্নোত্তর পর্বে আইএস এর নাম উচ্চারণ না করলেও, দুই বিদেশী নাগরিকের খুনীদের গ্রেফতার ও বিচার প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘খুনীরা ধরা পড়বে। বিচারও হবে। তাদের বিচারিক ব্যবস্থা আর আমাদের বিচারিক ব্যবস্থা আলাদা। তারাতো ধরা পড়লে গলা কেটে দেয়। আমরা তো এমন করলে আপনারা বলবেন, গেল গেল সব গেল।’