২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দুই বিদেশী হত্যা কূটনীতিকদের উদ্দেশে আজ ব্রিফিং

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ জাপান ও ইতালির দুই নাগরিক হত্যার ঘটনায় সরকারের পক্ষ থেকে বিদেশী কূটনীতিকদের ব্যাখ্যা দেয়া হবে। এ লক্ষ্যে আগামীকাল মঙ্গলবার ঢাকার কূটনীতিকদের নিয়ে একটি ব্রিফের আয়োজন করা হয়েছে। এদিকে রবিবার আবারও বাংলাদেশে অবস্থানরত নাগরিকদের সতর্ক করেছে ঢাকার জাপান দূতাবাস।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে বাংলাদেশে জাপান ও ইতালির দুই নাগরিককে হত্যার প্রেক্ষিতে বিদেশী কূটনীতিকরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এ ঘটনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান, ইতালি, স্পেন ও অস্ট্রেলিয়া নিজ নিজ দেশের নাগরিকদের সতর্কও করেছে। দুই নাগরিক হত্যার পর বিদেশী কূটনীতিকরা বাংলাদেশ সরকারের কাছে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। সে প্রেক্ষিতে এ ব্রিফের আয়োজন করা হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, দুই বিদেশী নাগরিককে হত্যার প্রেক্ষিতে বেশ কয়েকটি দেশের পক্ষ থেকে সরকারের সঙ্গে নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বিশেষ করে ঢাকার ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দেশগুলোর কূটনীতিকরা নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ করেছে। দুই নাগরিক হত্যার বিষয়ে সরকার কী ভাবছেÑ সেটাও জানতে চান তারা। এছাড়া বিদেশী কূটনীতিকরা এ হত্যাকা-ের ঘটনায় তদন্ত অগ্রগতিও জানতে চেয়েছেন। এসব বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে ব্যাখ্যা দেয়া হবে।

জাপানের নাগরিক হোসে কোনিও ও ইতালির নাগরিক সিজার তাভেলাকে হত্যার পর কূটনৈতিক জোনে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। বিদেশীদের নিরাপত্তায় সরকার যথেষ্ঠ সজাগ রয়েছে। এছাড়া দোষীদের গ্রেফতারে সরকারের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলেও জানিয়েছে সরকার। তবে আগামীকাল মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে বিদেশী কূটনীতিকদের সামনে সর্বশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরা হবে। কূটনীতিকদের ব্রিফে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল প্রমুখ উপস্থিত থাকবেন।

সিজার তাভেলা হত্যার পর বিদেশী কূটনীতিকদের মধ্যে অনেকেই উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তবে সে সময় জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দেয়ার কারণে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক নিউইয়র্কে অবস্থান করছিলেন। সে কারণে ব্রিফ করা সম্ভব হয়নি। এখন তারা দেশে ফেরার পর এ ব্রিফের আয়োজন করা হয়েছে।

এদিকে জাপানী নাগরিক হোসে কোনিও হত্যার ঘটনায় রবিবার আবারও বাংলাদেশে অবস্থানরত নাগরিকদের সতর্ক করে বিবৃতি দিয়েছে জাপান। জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে ঢাকার জাপানী দূতাবাস এ বিবৃতি প্রকাশ করেছে। জাপানী ভাষায় দেয়া এ বিবৃতিতেÑ জাপানী নাগরিকদের বাংলাদেশে চলাফেরায় সতর্ক করা হয়েছে। এতে বলা হয়, শনিবার সকালে বাংলাদেশের রংপুরে একজন জাপানী নাগরিককে হত্যা করা হয়েছে। মোটরসাইকেলযোগে এসে দুর্বৃত্তরা তাকে হত্যা করেছে বলে জানা গেছে। এ অবস্থায় সেখানে জাপানী নাগরিকদের সাবধানে চলাফেরা করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, গণমাধ্যম জানিয়েছে বাংলাদেশের নাগরিককে হত্যার বিষয়ে আইএস দায় শিকার করে বিবৃতি দিয়েছে। এছাড়া সেপ্টেম্বরের প্রথমদিকে আইএসের প্রকাশিত ম্যাগাজিন ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও বসনিয়া-হারজেগোভিনার জাপানের কূটনৈতিক মিশনে আঘাতের হুমকিও দেয়া হয় বলে জানানো হয়। তাই এ সমস্ত দেশে জাপানের নাগরিকদের চলাচলে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে জাপান সরকার। জাপানের কোন নাগরিক সশস্ত্র হামলার আশঙ্কা করা হলে জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সন্ত্রাসবাদসংক্রান্ত বিভাগে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। এর আগে শনিবারও ঢাকার জাপান দূতাবাস থেকে বাংলাদেশে অবস্থানরত জাপানী নাগরিকদের চলাফেরায় সতর্ক করা হয়। এদিকে ঢাকার জাপান দূতাবাস জানিয়েছে, রংপুরে জাপানী নাগরিক হত্যার বিষয়ে জাপান দূতাবাস এ বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ নিচ্ছে। এ লক্ষ্যে জাপান দূতাবাসের তিনজন কর্মকর্তা রংপুরের ঘটনাস্থলে গিয়েছেন।

শনিবার রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার নাসিনিয়ার বিল কচুআলুটারি এলাকায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন জাপানের নাগরিক হোসে কোনিও। ওই এলাকায় তার একটি ঘাসের প্রকল্প রয়েছে। সকালে ওই প্রকল্প থেকে ফেরার পথে কচুআলুটারি এলাকায় তাকে গুলি করা হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এদিকে ২৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলশানে সিজার তাভেলাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। তিনি আইসিসিও কো-অপারেশন নামে একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রুফ (প্রফিটেবল অপরচ্যুনিটিজ ফর ফুড সিকিউরিটি) কর্মসূচীর প্রকল্প ব্যবস্থাপক ছিলেন। আন্তর্জাতিক জঙ্গী সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এ হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে জঙ্গী হুমকি পর্যবেক্ষণকারী ওয়েবসাইট ‘সাইট ইন্টিলিজেন্স গ্রুপ’ জানিয়েছে। তবে আইএসের এ দাবির সত্যতা যাচাই হয়নি বলে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।