২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হবিগঞ্জে শিশুকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন ॥ তোলপাড়

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ৪ অক্টোবর ॥ সুপারি চুরির অভিযোগে চুনারুঘাটের রানীকোট বাজারে শাহজাহান নামে এক শিশুকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন করা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। শনিবার দুপুরে আহমদাবাদ ইউনিয়নের প্রাক্তন মেম্বার শিরন মিয়া শিশু শাহজাহানকে বাড়ি থেকে ডেকে রানীকোট বাজারের একটি দোকানে নিয়ে আসে। পরে সুপারি চুরির অভিযোগ তুলে শাহজাহানকে দোকানের একটি খুঁটির সঙ্গে দড়ি দিয়ে বেঁধে বেদম মারপিট করে। এ সময় শাহজাহানের চিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে এলেও তাকে উদ্ধার করতে ব্যর্থ। একপর্যায়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে শিরন মেম্বার হুংকার দিয়ে বলেন, ‘এই শিশুটি চোর। আমি যা ইচ্ছে করব, দেখি কেউ এগোয় কি না।’ পরে এক ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় অসুস্থ অবস্থায় শাহজাহানকে মুচলেকায় ছাড়িয়ে আনা হয়। তবে প্রভাবশালীরা পুলিশের সহযোগিতায় বিষয়টি দিনব্যাপী ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালালেও রাতে তা সর্বত্র আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। পুলিশ খবর পেয়েও এই মেম্বারের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা এখনও না নেয়ায় এলাকায় বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

মাদারীপুরে কিশোর নির্যাতন ॥ শনিবার রাতে সদর উপজেলার পাঁচখোলা গ্রামের আকিব ফকির মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে আসিফ শেখ (১৫) নামে এক কিশোরকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে মাদারীপুর ও পরে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জানা গেছে, কালকিনির কুলচোরি সস্তাল গ্রামের তোফাজ্জেল শেখের ছেলে আসিফ শেখ পাঁচখোলা গ্রামে নানা তসলিম বেপারীর বাড়িতে বেড়াতে আসে। শনিবার বিকেলে নানাবাড়ির প্রতিবেশী আকিব ফকিরের বাড়িতে যায় সে। এ সময় ওই বাড়িতে মোবাইল চুরি হয়েছে বলে আসিফকে ঘরে আটকে রাখে। পরে চুরির অপবাদ দিয়ে আসিফকে ওই পরিবারের লোকজন রাতে বেধড়ক মারধর করে। স্থানীয়রা তাঁর চিৎকার শুনে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে তাকে। উন্নত চিকিৎসার জন্য রবিবার সকালে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। ঘটনার পর থেকে আকিব ফকিরসহ তার পরিবারের লোকজন পলাতক।