২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ট্যানারি মালিকদের কারসাজিতে চামড়া ব্যবসায় বিপর্যয়

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ কিছু ট্যানারি মালিকের সিন্ডিকেট কারসাজিতে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে দেশের চামড়া ব্যবসা। কোরবানির পর ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত চামড়া কেনার আগ্রহ দেখাচ্ছে না তারা। শুধু চট্টগ্রামের বিভিন্ন আড়তে পড়ে আছে অন্তত সাড়ে তিন লাখ পশুর চামড়া। এতে, লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে চরম অনিশ্চয়তায় পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। মূলত কম দামে চামড়া কিনতে তাদের এ কৌশল বলে অভিযোগ উঠেছে।

প্রতি বছরই কোরবানির সংগৃহীত চামড়া প্রথম ৫ থেকে ১০ দিন স্থানীয় আড়তে লবণ দিয়ে সংরক্ষণ করা হয়। এরপর শুরু হয় এসব চামড়া ঢাকার ট্যানারিতে পাঠানো। আর চামড়া কেনা কিংবা দর যাচাই-বাছাই করার জন্য ট্যানারি মালিকরা কোরবানির পর থেকেই আড়তদারদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেন। কিন্তু এবার ট্যানারি মালিকরা কোরবানির আগে প্রতি বর্গফুট চামড়ার দর কমিয়ে দেয়। পাশাপাশি চামড়া কেনার ব্যাপারে এখন কোন আগ্রহ দেখাচ্ছেনা তারা।

চট্টগ্রাম কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ী ও আড়তদার সমিতির উপদেষ্টা মোহাম্মদ মুসলিম বলেন, ‘অন্যান্য বছর এই সময় ২০ থেকে ৩০ হাজার চামড়া বেচা-কেনা হতো। এবার ট্যানারি মালিকরা এখন পর্যন্ত যোগাযোগ করেনি।’

মূলত কারসাজির মাধ্যমে কম দামে চামড়া কিনে নিতে ট্যানারি মালিকদের এটি একটি কৌশল বলে মনে করছেন সাধারণ ব্যবসায়ীরা।