২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজীব গান্ধীর বিরুদ্ধে সামরিক অভ্যুত্থানের ষড়যন্ত্র হয়েছিল

  • সাবেক সেনা কমান্ডার লে. জেনারেল হুনের বইয়ে দাবি

১৯৮৭ সালে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী সরকারকে উৎখাতের ষড়যন্ত্র করেছিল দেশটির সেনাবাহিনী। মর্যাদাপূর্ণ ওয়েস্টার্ন কমান্ডের সাবেক সেনা কমান্ডার লে. জেনারেল পি এইচ হুন তার সদ্য প্রকাশিত বই ‘দি আনটোল্ড ট্রুথ’এ এ দাবি করেছেন। তিনি বলেন, ওয়েস্টার্ন কমান্ডসহ তিনটি ক্র্যাক প্যারা-কমান্ড ব্যাটালিয়নকে দিল্লীতে পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

৮৬ বছর বয়সী হুন অভিযোগ করেন যে, তৎকালীন সেনাপ্রধান জেনারেল কৃষ্ণস্বামী সুন্দরজী ও উপসেনাপ্রধান লে. জেনারেল এস এফ রডরিগসও এই ষড়যন্ত্রে জড়িত ছিলেন। হুন তার বইতে ইঙ্গিত দিয়েছেন যে, রাজীবের সঙ্গে ভাল সম্পর্ক ছিল না এমন কয়েকজন সিনিয়র রাজনীতিবিদ এই অভ্যুত্থানের পরিকল্পনায় মদত দিয়েছিলেন। তিনি বইয়ে আরও বলেছেন, পাঞ্জাবের তৎকালীন গবর্নর সিদ্ধার্থ শংকর রায় চ-ীগড়ে ১৯৮৭ সালে হুনের বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। সেখানে সাবেক প্রেসিডেন্ট জ্ঞানী জৈল সিং দুর্নীতি ও অবহেলার জন্য রাজীব গান্ধীকে দায়ী করেন এবং বলেন, ১৯৮৪ সালে শিখবিরোধী দাঙ্গা নিয়েও রাজীব নির্লিপ্ত ছিলেন। হুন দাবি করেন, ১৯৮৭ সালের মে-জুন পর্যন্ত ওয়েস্টার্ন কমান্ডের প্রধান হিসেবে তিনি যখন দিল্লীতে কর্মরত ছিলেন, তখন তিনি একটি বার্তা পান যে, সেনা সদর দফতর তিনটি প্যারা-কমান্ডো ব্যাটালিয়ন চেয়ে একটি চিঠি পাঠিয়েছে ওয়েস্টার্ন কমান্ড সদর দফতরে। এই ব্যাটালিয়নগুলোর মধ্যে ছিল ওয়েস্টার্ন কমান্ডের অধীনে ফার্স্ট প্যারা-কমান্ডো এবং নর্দান ও সাউদার্ন কমান্ডের অধীনে নাইনথ ও টেনথ প্যারা-কমান্ডো। লে. জেনারেল রডরিগসের অধীনে এই তিন ব্যাটালিয়নকে ন্যস্ত করার নির্দেশ দেয়া হয়। তিনি বলেন, তিনি দ্রুত এ বিষয়ে রাজীব ও তার মুখ্য সচীব গোপী আরোরাকে অবহিত করেন এবং বিশেষ বাহিনীগুলোকে চেয়ে পাঠানো চিঠিটি দেখান। ১৯৮৭ সালের অক্টোবরে অবসর নেয়া হুন দাবি করেছেন, তখন তিনি ওয়েস্টার্ন কমান্ডের অধীনে থাকা দিল্লী এরিয়া কমান্ডারদের নির্দেশ দেন, তার অনুমতি ছাড়া কোন সৈন্যকে স্থানান্তর করা যাবে না।

বইয়ে হুন আরও বিবৃত করেছেন যে, রাজীবের মন্ত্রিসভার এক মন্ত্রী ভি সি শুক্লা সম্ভাব্য সেনা কর্মকা- সম্পর্কে জানতেন। হুন তার বইয়ের উপসংহারে বলেছেন, গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারের হাত থেকে ক্ষমতা সামরিক বাহিনীর কাছে চলে যেতে পারে এই ভয়ে, রাজীব গান্ধী সরকারের বিরুদ্ধে আর কোন পদক্ষেপ নেননি জৈল সিং। তবে হুনের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে ৯৪ বছর বয়সী এয়ার মার্শাল রণধীর সিং বলেছেন, সামরিক অভ্যুত্থানের চেষ্টা কখনও করা হয়নি।