১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সেভিয়ায় আত্মসমর্পণ বার্সিলোনার

  • স্প্যানিশ লা লীগা, ১০০ নম্বর ম্যাচে হারের বেদনা নেইমারের, গোলখরায় বিস্মিত কোচ এনরিকে, সেভিয়া ২-১ বার্সিলোনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দীর্ঘ আট বছর পর স্প্যানিশ লা লীগায় সেভিয়ার কাছে হারের লজ্জায় ডুবেছে বার্সিলোনা। শনিবার রাতে অ্যাওয়ে ম্যাচে স্বাগতিকদের কাছে ২-১ গোলে হেরেছে ক্যাটালানরা। অধিনায়ক আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা ও লিওনেল মেসিকে ছাড়া এই হারে পয়েন্ট তালিকারও শীর্ষস্থান হারিয়েছে আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

এই হারে বার্সিলোনার হয়ে ১০০তম ম্যাচ স্মরণীয় হলো না নেইমারের। ম্যাচে পেনাল্টি থেকে একটি গোল করলেও দলের হার রুখতে পারেননি ব্রাজিলিয়ান অধিনায়ক। ২০১৩ সালের ২৬ মে বার্সিলোনায় যোগ দেয়ার পর ১০০ ম্যাচের মধ্যে ৭৪টিতেই জয়ের স্বাদ পেয়েছেন নেইমার। হেরেছেন ১৫ ম্যাচে ও ড্র করেছেন ১১ ম্যাচে। শততম ম্যাচের মাইলফলকে পৌঁছতে নেইমার লা লীগায় খেলেছেন ৬৫ ম্যাচ, চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ২৪ ম্যাচ, কোপা ডেল রেতে ৯ ম্যাচ ও স্প্যানিশ সুপার কাপে ২ ম্যাচ। বার্সার করুণ হারে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে গেছে ভিয়ারিয়াল। ছয় ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে তারা। সাত ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে সেল্টা ডি ভিগো। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে বার্সিলোনা। ছয় ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে রিয়াল মাদ্রিদ। রবিবার রাতে ভিয়ারিয়াল ও রিয়াল ভিন্ন ভিন্ন ম্যাচ খেলেছে। দল দু’টি নিজ নিজ ম্যাচে জয় পেলে ভিয়ারিয়ালের শীর্ষস্থান অক্ষণœ থাকবে, আর রিয়াল উঠে আসবে দুই নম্বরে। সময়ের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় মেসি যে দলের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ, সেটা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে বার্সিলোনা। আর্জেন্টাইন তারকাকে ছাড়া মাঠে নেমে এবার হেরেই গেছে তারা। ২০০৭ সালের পর লা লীগায় এই প্রথম বার্সার বিরুদ্ধে জয় পেয়েছে সেভিয়া। প্রতিপক্ষের মাঠে খেলতে গিয়ে টানা দ্বিতীয় হারের স্বাদ পেতে হলো লুইস এনরিকের দলকে। এর আগে সেল্টা ভিগোর মাঠে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত হয় বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। তবে সেভিয়ার কাছে হারের জন্য ভাগ্যকেও দুষতে পারেন বার্সা সমর্থকরা! বার্সিলোনার চারটি গোল প্রচেষ্টা নষ্ট হয়েছে গোলবারে প্রতিহত হয়ে। কিছু দারুণ সেভ করেছেন সেভিয়ার গোলরক্ষক সার্জিও রিকো। ম্যাচের ২৩ মিনিটে নেইমারের ফ্রিকিক ফিরে আসে সেভিয়ার গোলপোস্টে লেগে। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ আগে উরুগুয়ের স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজের একটি শটও আঘাত হানে গোলপোস্টে। ফলে প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্যভাবে। বিরতির পর বার্সার দুর্বল রক্ষণভাগের ফায়দা ভালোমতোই নেয় সেভিয়া। ৫২ মিনিটে ম্যাচের প্রথম গোলটি করেন সেভিয়ার ড্যানিশ মিডফিল্ডার মাইকেল ক্রন। ৫৮ মিনিটে বার্সার জালে আরেকবার বল জড়িয়ে দলের জয় অনেকটাই নিশ্চিত করেন ভিসেন্তে ইবোরা। ৭৪ মিনিটে নেইমার একটি গোল পরিশোধ করেন পেনাল্টি থেকে। খেলা শেষ হওয়ার দশ মিনিট আগে সমতা ফেরানোরও দারুণ সুযোগ পেয়েছিল বার্সা। কিন্তু এবারও সান্ড্রো রামিরেসের একটি শট ফিরে আসে গোলপোস্টে লেগে।

ভাগ্য বিড়ম্বনার এই ম্যাচে হেরে বিস্মিত হয়েছেন বার্সিলোনা কোচ লুইস এনরিকে। একাধিক সহজ সুযোগ হাতছাড়া হওয়া কিছুতেই মানতে পারছেন না গত মৌসুম ট্রেবল জয় এই কোচ। এনরিকে বলেন, এটা এমন একটা ম্যাচ, যেখানে আমরা প্রচুর সুযোগ পেয়েছি। এটা প্রায় অবিশ্বাস্য যে, আমরা মাত্র একটি গোল পেয়েছি। দ্বিতীয়ার্ধে ছয় মিনিটের মধ্যে দুই গোল করে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় সেভিয়া। এটাকেই ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সেভিয়াকে তাদের প্রচেষ্টা আর শেষ ফলের জন্য অভিনন্দন জানাতেই হবে। অনেকে হতাশ হলেও এই হারে ভেঙে পড়ছেন না লুইস সুয়ারেজ। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, আমরা অনেক সুযোগ নষ্ট করেছি। ভাগ্যও সহায় ছিল না। তবে এখনই সব শেষ হয়ে যায়নি। ম্যাচটি জয়ের সুযোগ ছিল আমাদের। কিন্তু এতে দুনিয়া ধ্বংস হয়ে যায়নি। বার্সিলোনার মিডফিল্ডার ইভান রাকিটিচ বলেন, এভাবে হারাটা কষ্ট দেয়। আমরা অনেক সুযোগ পেয়েছিলাম।