১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জিম্বাবুইয়ে-পাকিস্তান সিরিজ নির্ধারণী ওয়ানডে আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জিম্বাবুইয়ের কাছে হেরেও বড় বাঁচা বেঁচে গেল পাকিস্তান! ‘আন্ডারডগ’দের কাছে হেরে আবার বাঁচল কিভাবে? ভুলে গেলে চলবে না এই সেই ‘গাদ্দারির’ সিরিজ, বাংলাদেশকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির রেস থেকে ছিটকে দিতে কি মরিয়া চেষ্টাটাই না পাকিস্তানের। ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ পাকিরা ভাল করেই জানত, জিম্বাবুইয়ের কাছে তাদের হেরে যাওয়া কঠিন কাজ নয়! তাইতো সিরিজটিকে ৩০ সেপ্টেম্বরের পরে নিয়ে আসা এবং ঠিকই দ্বিতীয় ম্যাচে হেরে যাওয়া...! শনিবার হারারেতে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জিম্বাবুইয়ের কাছে ৫ রানে হার আজহার আলিদের। ফলে আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ের ৯ নম্বরে নেমে গেছে তারা, তবুও টিকে গেছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে! আজ তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে হারলে সিরিজ খোয়ানোর লজ্জায় পড়বে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। তাতে কি? চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির টিকেট তো আর খোয়া যাবে না!

নিয়ম অনুযায়ী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা আট দলই খেলবে ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে। পূর্ব নির্ধারিত সূচী অনুযায়ী জিম্বাবুইয়ে সফরে আগে ছিল টি২০, কিন্তু বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করে আগে টি২০ খেলেন শহীদ আফ্রিদিরা। ৩ অক্টোবর থেকে শুরু হয় ওয়ানডে। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নাটকীয়তা কম হয়নি। প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২৭৬ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে স্বাগতিক জিম্বাবুইয়ে। জবাবে ২২তম ওভারে দলীয় ৭৬ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে হারের গন্ধ পাচ্ছিল পাকিস্তান। তখনই শোয়েব মালিক ও আমির ইয়ামিনের ঘুরে দাঁড়ানো। সপ্তম উইকেটে ১৮.৩ ওভারে ১১১ রান যোগ করে খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেন তারা। আমিন আউট (৬২) হওয়ার পর যোগ দেন ইয়াসির। নবম উইকেটে ৬.১ ওভারে অবিচ্ছিন্ন ৬৩ রান যোগ করে পাকিস্তানকে প্রায় জয়ের কাছাকাছি নিয়ে যান দু’জনে।

৪৮ ওভারে ৮ উইকেটে ২৫৬ রান সংগ্রহ করে সফরকারীরা। এরপরই আলোর স্বল্পতায় খেলা বন্ধ হয়ে যায়। যখন মালিক অপরাজিত ৯৬। ডার্কওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ৫ রানের নাটকীয় জয় পায় (টার্গেট ২৬২) জিম্বাবুইয়ে! ‘এটা দারুণ এক ম্যাচ, কঠিন পরিস্থিতিতে মালিক আর ইয়ামিন আমাদের ম্যাচে ফিরিয়ে আনে। নয়তো একতরফা হারতে হতো! এটা ঠিক জিম্বাবুইয়ে চমৎকার খেলেছে, বিশেষ করে এই কন্ডিশনে ওরা আড়াইশ’র ওপরে রান তুলে এগিয়ে ছিল। আমরা শুরুতে কয়েকটি উইকেট হারিয়ে সেটিকে আরও কঠিন করে তুলেছিলাম। আলোর স্বল্পতায় আম্পায়ারদের সিদ্ধান্ত নিয়ে কিছু বলার নেই।