২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘রাক্ষসী যমুনা সব কাইড়া নিতাছে’

  • ইসলামপুরে দুই শতাধিক বাড়ি বিলীন ॥ হুমকির মুখে কয়েক হাজার

নিজস্ব সংবাদদাতা, জামালপুর, ৪ অক্টোবর ॥ ইসলামপুর উপজেলার গুঠাইল বাজারের উত্তর পাশে প্রায় এক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ভয়াবহ নদী ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। এক সপ্তাহে প্রায় দুই শতাধিক পরিবারের বসতভিটা যমুনায় বিলীন হয়েছে। এছাড়াও হুমকির মুখে রয়েছে গুঠাইল বাজার এলাকার কয়েক হাজার বসতভিটা।

শনিবার সরেজমিনে গেলে মাঝিপাড়া গ্রামের ষাটোর্ধ রমিছা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘রাক্ষুুসী যমুনা আঙ্গরে সবকিছু কাইড়া নিছে। নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে এগারো বার ঘরবাড়ি সরাইছি। টেকার অভাবে নদীপার থেকে বেশি দূরে যাইতে পারি না। তাই যেহানে বাড়ি করি সেহানেই নদী ভাঙ্গে। ওই সময় মর্জিনা খাতুন বলেন, এ বছর বন্যা শেষে নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ছি। থাহনের ঘর ভাইঙ্গা খোলা মাঠে ফালাইয়া রাখছি। টেকার অভাবে ঘর তুলতে পারছি না। নদীর ভাঙ্গনও থামে না। কেউ আঙ্গরে সাহায্যও করে না’। মর্জিনার সঙ্গে কথা শেষ হতেই চারদিক থেকে ছুটে আসেন যমুনা নদী ভাঙ্গনের শিকার মাঝিপাড়া গ্রামের সাহেব মিয়া, শাহ জাহান, আয়শা, সুখ জাহান, বিষ্ণ, করিমন, নির্মল, তারেক শাহ, আলাউদ্দিন ও মতিউর রহমানসহ প্রায় ৫০ নারী-পুরুষ।

তাদের প্রত্যেকের বসতভিটাসহ ফসলি জমি বিলীন হয়েছে।

স্থানীয় এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল জানান, গুঠাইল এলাকা ভয়াবহ নদী ভাঙ্গন তিনি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন। খুব শীঘ্রই নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধের কার্যকর পদক্ষেপ নেয়াসহ গুঠাইল মাঝিপাড়া এবং ঘোনাপাড়া এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারসমূহকে পুনর্বাসনে আর্থিক সহায়তা প্রদানের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।