২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই ঘন্টায়    
ADS

শারদীয় উৎসবের রঙে

  • তৌফিক অপু

ঋতু বৈচিত্র্যের দেশ আমাদের বাংলাদেশ। ঋতুর এ পালাবদলে প্রকৃতিতে বইছে শরতের হাওয়া। সাদা শুভ্র মেঘের উড়ে বেড়ানো এবং স্নিগ্ধ বাতাস মন কে মাতাল করে তোলে। চমৎকার এ আবহাওয়ায় চারদিকে বিরাজ করে উৎসবের আমেজ। এ উৎসবের আমেজকে আরও বেশি রঙিন করে তুলতে দরজায় কড়া নাড়ছে শারদীয় দুর্গাৎসব। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। জাতিগতভাবে বাঙালীর আলাদা একটা পরিচয় রয়েছে। যে কারণে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উৎসব হলেও সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ থাকে এতে। জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে এক হয়ে যেতে পারা বাঙালী জাতির অন্যতম বৈশিষ্ট্য। এ উৎসবকে কেন্দ্র করে চারদিকে সাজসাজ রব বিরাজ করছে। পুজো ম-প থেকে শুরু করে সব জায়গায়তেই চলছে উৎসবের প্রস্তুতি। বসে নেই ফ্যাশন হাউসগুলোও। পুজোর পোশাক তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে তারা। অন্যবারের তুলনায় এবারের প্রস্তুতি আরও ব্যাপক। চাহিদার রেশটাও বেশ। এ প্রসঙ্গে ডিজাইনার রাতুল হাসান জানান, গতবারের চেয়েও এবারের প্রস্তুতি একটু বেশি। আর হওয়াটাই স্বাভাবিক। কারণ মানুষ দিন দিন ফ্যাশন সচেতন হয়ে উঠছে। তারই প্রভাব পড়ছে ফ্যাশন ট্রেন্ডে। যে কারণে প্রস্তুতি বেশ আগে থেকেই নিতে হয়। ডিজাইনে খুব বেশি ভেরিয়েশন না থাকলেও কালার কম্বিনেশন চোখে পড়ার মতো। তাছাড়া ডিজাইনে একটু গর্জিয়াস ভাবও ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। অন্যবারের তুলনায় এবার প্রোডাক্ট আইটেম বেশি। যেমন অন্যান্য বারে পুজোর পোশাক শাড়ি-পাঞ্জাবিতেই সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু এবারের পরিধি ব্যাপক। শাড়ি, পাঞ্জাবি ছাড়াও এবারের পুজোর ফ্যাশন ট্রেন্ডে শর্ট পাঞ্জাবি, ফতুয়া, টি-শার্ট এবং কুর্তাতে পুজোর আবহ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। পুজো উপলক্ষে একেকটি ফ্যাশন হাউস সেজেছে নিজ নিজ রঙে। তারই কিছু তুলে ধরা হলো।

কে ক্র্যাফট : পুজো উপলক্ষে এক্সক্লুসিভ শাড়ি, পাঞ্জাবি এবং ধুতির সমন্বয় ঘটিয়েছে কে ক্র্যাফট। সেই সঙ্গে পুজোর অন্যান্য অনুষঙ্গ যেমন শাঁখা সিঁদুরের পসরাও রয়েছে। কটন, এন্ডি কটন এবং দুপিয়ান কাপড়ের সমন্বয়ে তৈরি হয়েছে এবারের পুজোর পোশাক। দামও হাতের নাগালে। ছেলে এবং মেয়েদের ফতুয়া পাওয়া যাবে ৪৫০ টাকা থেকে ১২৫০ টাকা। শাড়ি ১৫০০ টাকা থেকে ৫৮০০ টাকা। পাঞ্জাবি ১০০০ টাকা থেকে ৪০০০ টাকা।

অঞ্জন’স : উৎসবের রঙে অঞ্জন’স বরবরই এগিয়ে। এবারেও পুজো উপলক্ষে ক্রেতাদের চাহিদামতো প্রোডাক্ট নিয়ে এসেছে তারা। আবহাওয়ার সঙ্গে সঙ্গতি রেখেই কাপড় নির্বাচন করা হয়েছে। শাড়ির মূল্য পড়বে ১০৫০ টাকা থেকে ৬০০০ টাকা। পাঞ্জাবি ১২৫০ টাকা থেকে ৩৮০০ টাকা। শেরওয়ানি ৫০০০ টাকা থেকে ১২০০০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে।

নিত্য উপহার : গতনুগতিক ধারার বাইরে ভিন্নধর্মী ডিজাইন করার চেষ্টা করে নিত্য উপহার। এবারের বিশেষ আকর্ষণ বাটিকের ধুতি। যার মূল্য পড়বে ৬৫০ টাকা থেকে ১২০০ টাকা। এছাড়াও ডিজাইন এবং কাপড় ভেদে বিভিন্ন দামের ধুতি রয়েছে। এছাড়াও দেশিদশ, আড়ং, বুনন, সাদা কালো পুজোয় সেজে উঠেছে আপন মহিমায়।

রঙ : প্রতিবারের চেয়ে আরও বর্ণিল সাজে সেজেছে রঙ। শারদীয় উৎসবের প্রতিটি আয়োজনের প্রস্তুতি নিয়েছে রঙ। ষষ্ঠী, সপ্তমী, অষ্টমী, নবমী এবং দশমীর জন্য ভিন্ন ভিন্ন ফ্যাশন আয়োজনে সেজেছে রঙ। অর্থাৎ একেক দিনের একেক সাজ এবং একেক পোশাকের আয়োজন রেখেছে রঙ। যাতে উৎসবের প্রতিটি দিন যেন বর্ণিল হয়ে ওঠে। উৎসবের আকাশকে আরও বেশি রঙিন করে তুলতে পুজোর পোশাকের পাশাপাশি রয়েছে অন্যান্য অনুষঙ্গ।

পুজোয় জামাকাপড় ছাড়াও অন্যান্য প্রোডাক্টের কদরও কম নয়। বিশেষ করে গয়নার আলাদা একটা চাহিদা থাকে। গলার চেন, সীতা হার, আংটি, বালা, চুড়ি ইত্যাদি। গয়না হাউস মাদুলি এবারের পুজো উপলক্ষ্যে বিভিন্ন ধরনের এন্টিক ও পুরোনো জমিদারি ষ্টাইলের গয়না নিয়ে এসেছে। যা পুজোর আবহকে আরও বেশি ফুটিয়ে তুলবে। এছাড়াও বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসেও দেখা মিলবে পুজোর গয়না। সর্বজনীন এ উৎসবের আকাশ আরও বেশি বর্ণিল হয়ে ওঠে যখন জাতি ধর্ম ভেদাভেদ ভুলে সবাই এক হয়ে পালন করে থাকে। যেকোন উৎসবে এক হয়ে কাধে কাধ মিলিয়ে উৎসব কে বর্ণিল করে তোলাই যেন এদেশের রীতি। সৌহার্দ্য সম্প্রীতির রেওয়াজ এদেশের দীর্ঘদিনের। যা রীতিমতো ইর্ষনীয়। এদেশের এ ভ্রাতৃত্ব বন্ধন অটুট রাখার দায়িত্ব আমাদেরই।

মডেল : মৌ

ছবি : রঙ