১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ব্যর্থ হলে মধ্যপ্রাচ্য ধ্বংস হবে

  • রুশ বিমান হামলা জোরদারের পর টিভি সাক্ষাতকারে আসাদ

সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ব্যর্থ হওয়ার অর্থ হলো পুরো মধ্যপ্রাচ্য ধ্বংস হয়ে যাওয়া। সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেছেন, ইরান, রাশিয়া, ইরাক ও সিরিয়ার মধ্যকার জোট সফল হতেই হবে। এ ক্ষেত্রে ব্যর্থ হওয়ার কোন সুযোগ নেই। কারণ ব্যর্থ হলে ওই অঞ্চল ধ্বংস হয়ে যাবে। রাশিয়া সিরিয়ায় বিমান হামলা আরও জোরদার করার অঙ্গীকার করার পর পরই আসাদ এক সাক্ষাতকারে এ কথা বলেন। খবর গার্ডিয়ান ও ডেইলি মেইলের।

ইরান, ইরাক, সিরিয়া ও রাশিয়া মিলে একটি যৌথ গোয়েন্দা তথ্য কেন্দ্র গড়ে তুলেছে, যেটি ওই অঞ্চলের সন্ত্রাসী ও জঙ্গীদের বিরুদ্ধে সংগ্রহ করা যে কোন ধরনের তথ্য নিজেদের মধ্যে বিনিময় করবে এবং সন্ত্রাসীদের মোকাবেলায় পরস্পরকে সহায়তা করবে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেল ‘খবর’কে রবিবার দেয়া ওই সাক্ষাতকারে আসাদ বলেন, দুই শরিক ইরান ও রাশিয়া সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার ব্যাপারে অভিজ্ঞ এবং তাদের ওই অভিজ্ঞতা কাজে লাগাবে সিরিয়া ও ইরাক। চারটি দেশ তাদের যৌথ সামরিক, নিরাপত্তা ও গোয়েন্দাভিত্তিক তথ্য আদান-প্রদান করে পরস্পরকে সহযোগিতার মাধ্যমে তাদের মূল উদ্দেশ্য পূরণে সক্ষমতা অর্জন করবে। আমরা নিশ্চিত যে, আমাদের এই জোট অবশ্যই সফল হবে। এ জোট ‘বাস্তবসম্মত ফল’ বয়ে আনবে। তা মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনীর মত হবে না। এদিকে পশ্চিমা নেতারা বলেছেন, রাশিয়ার আগ্রাসন সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ অনির্দিষ্টকাল ধরে চলার হুমকি আরও বাড়িয়েছে। তবে আসাদ দাবি করেন যে, এই অঞ্চলের শান্তি রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের ওপর নির্ভর করছে। সিরিয়ায় আইএস, বিদ্রোহী ও সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোর ওপর বুধবার থেকে শুরু হওয়া রুশ বিমান হামলা পঞ্চম দিনে প্রবেশ করেছে। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় রবিবার জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় আইএসের কমান্ড পোস্ট, একটি প্রশিক্ষণ ক্যাম্প ও বিস্ফোরক কারখানাসহ ১০টি লক্ষ্যস্থলে হামলা চালিয়েছে তারা। সিরিয়ায় মার্কিন-নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনীর বিমান হামলায় উল্টো ফল হচ্ছে বলে সমালোচনা করে আসাদ বলেন, এতে কেবলই সন্ত্রাসের বিস্তার ঘটেছে। সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, এই যুদ্ধ ততদিনই চলবে যতদিন পর্যন্ত সন্ত্রাসীরা জনগণকে বা জনগণ সন্ত্রাসীদের পরাজিত না করতে পারবে। তাই এখন এই জোটের ওপর এবং এই আন্তর্জাতিক পরিবর্তনের ওপর আমরা বড় আশা করছি। এই জোটের ব্যর্থতার অর্থ হলো পুরো অঞ্চলে ধ্বংসের মুখোমুখি হব আমরা।

আসাদ সাক্ষাতকারে আরও বলেছেন, রাশিয়ার এই অভিযানের জন্য কোন সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়নি। তবে রুশ এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, এই অভিযান তিন থেকে চার মাস স্থায়ী হতে পারে। এদিকে সিরিয়ার সরকার বিরোধীরা বলেছে, রাশিয়ার হামলা মূলত চলছে আসাদ বিরোধী বিদ্রোহী দলগুলোর ওপর। আসাদ বিরোধী পশ্চিমারা বলেছে, আলোচনার মাধ্যমে সিরিয়ার চার বছরের গৃহযুদ্ধের সমাধান করতে হলে সেখানে প্রেসিডেন্টের পদত্যাগের বিষয়টি অবশ্যই থাকতে হবে। যদিও পশ্চিমা কয়েকটি দেশ বর্তমানে কিছু সময়ের জন্য আসাদকে ক্ষমতায় থাকতে দিতে রাজি। কিন্তু আসাদ জোর দিয়েই বলেছেন, সিরিয়ায় রাজনৈতিক ব্যবস্থা কিংবা কর্মকর্তাদের নিয়ে আলোচনা করাটা তার দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়।