২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শরীয়তপুরে ফের প্রসূতির মৃত্যু ॥ ডাক্তারের পলায়ন

নিজস্ব সংবাদদাতা, শরীয়তপুর, ৫ অক্টোবর ॥ শহরের প্রাণকেন্দ্র চৌরঙ্গীর মোড়ে অবস্থিত নিউ মেট্রো ডায়াগনস্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকে ডাক্তারের অবহেলায় এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার রাতে নড়িয়া উপজেলার মশুরা গ্রামের ইতালি প্রবাসী আব্দুল জলিল মাদবরের স্ত্রী লাবনী আক্তার ওই ক্লিনিকে সন্তান প্রসবের সময় কোন ডাক্তার না থাকায় যন্ত্রণায় মৃত্যুবরণ করেন বলে রোগীর আত্মীয়স্বজনরা অভিযোগ করেছে। ক্লিনিকে একজন মাত্র গাইনি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার তখন অন্য রোগীর অপারেশনে ব্যস্ত ছিল। ডাক্তারের অবহেলায় রোগী মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে রোগীর আত্মীয়স্বজনসহ আশপাশের লোকজন এসে ক্লিনিকে হৈচৈ শুরু করে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামীর ফুফাত ভাই সালাউদ্দিন পেদা বাদী হয়ে সোমবার সকালে ডাঃ সৈয়দা সাহিনুর নাজিয়াকে আসামি করে পালং মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। আসামি ডাঃ সৈয়দা সাহিনুর নাজিয়া পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাকে গ্রেফতারের জন্য খুঁজছে। ঘটনা তদন্তের জন্য জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নিহতের মা লায়লা বেগম জানান, শুক্রবার বিকেলে সন্তান সম্ভাবা লাবনী আক্তারকে নিউ মেট্রো ডায়াগনস্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকেই নরমাল ডেলিভারি হবে কোন সমস্যা নেই বলে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে দিয়ে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন ডাক্তার। ৩ দিন প্রসূতিকে অবজারবেশনে রাখার পর রবিবার সন্ধ্যাায় তাকে সিজার করে সন্তান প্রসবের জন্য নার্সদের দ্বারা অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যায়। সেখানে প্রসূতিকে রেখে ক্লিনিকে একমাত্র গাইনি বিশেষজ্ঞ সদর হাসপাতালের ডাক্তার সৈয়দা সাহিনুর নাজিয়া তখন অন্য রোগীর অপারেশনে ব্যস্ত ছিলেন।

রামপালে কিশোরী গণধর্ষণের শিকার

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ॥ রামপালে এক কিশোরী (১৪) গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। বাবা-মায়ের সঙ্গে যশোর থেকে বেড়াতে গিয়ে রবিবার রাতে সে এ ঘটনার শিকার হয়। এ ঘটনায় রবিউল গাজী নামের লম্পটকে পুলিশ আটক করেছে। সোমবার কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা বাগেরহাট সদর হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে। পুলিশ জানায়, যশোর জেলার গাইডগাছি এলাকার জনৈক ব্যক্তি তার স্ত্রী ও মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে রবিবার বাগেরহাটের রামপাল গোবিন্দপুর এলাকায় আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াতে যান। সেখানে ওই কিশোরীকে কৌশলে স্থানীয় বখাটে মোজা শেখসহ (২৮) ৩ যুবক তুলে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে তারা ওই রাতেই পার্শ্ববর্তী রনসেন এলাকার ৩ যুবকের কাছে ওই কিশোরীকে তুলে দিলে তারাও তাকে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে।