২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গৃহবধূ খুন ॥ অন্যত্র দুই লাশ উদ্ধার

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া নারায়ণগঞ্জে স্কুলছাত্র এবং ফরিদপুরে তরুণের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ কসবায় পারিবারিক কলহের জের ধরে সুমা আক্তার নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করেছে স্বামী রাসেল মিয়া। রবিবার রাতে কসবা উপজেলার কুটি ইউপির রামপুর গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে। ঘাতক রাসেল মিয়া একই ইউপির বিষ্ণুপুর গ্রামের আবু তাহের মিয়ার ছেলে।

ঘটনার পর থেকে সে পলাতক রয়েছে। জানা যায়, ২০১৩ সালে উপজেলার কুটি ইউপির রামপুর গ্রামের কুদ্দুছ মিয়ার মেয়ে সুমা আক্তারের সঙ্গে রাসেল মিয়ার বিয়ে হয়। রবিবার রাতে পারিবারিক কলহের এক পর্যায়ে ঘাতক স্বামী দা দিয়ে স্ত্রী সুমাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ॥ আড়াইহাজারে নিখোঁজের একদিন পর পুকুর থেকে স্কুলছাত্র সোহাগ (১৪) নামের এক স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার বেলা ১১টায় উপজেলার প্রভাকরদী এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।

নিহত সোহাগ ওই এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে। সে এ এম বদরুজ্জামান উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র।

ফরিদপুর ॥ চরভদ্রাসনে লিয়াকত শেখ (২৫) নামের এক তরুণের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার সকালে চরভদ্রাসন সদর ইউনিয়নের বিএস ডাঙ্গির ওই তরুণের নানা মনসুর মুন্সির বাড়ির খড়ি রাখার ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় রশি বাঁধা ঝুলন্ত লাশটি পাওয়া যায়। লিয়াকত শেখ ওই একই গ্রামের শেখ বারেকের ছেলে। সে ঢাকায় তার ভগ্নিপতির গ্যারেজে কাজ করে। ঈদের ছুটিতে লিয়াকত বাড়ি এসেছিল।

রূপগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রীর শ্লীলতাহানি লুট

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, ৫ অক্টোবর ॥ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে প্রতিপক্ষের লোকজন এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর শ্লীলতাহানি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় প্রবাসীর স্ত্রী, ছেলে ও ভাতিজাকে এলোপাতাড়িভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। এছাড়া বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে নগদ টাকাসহ স্বর্ণ লুট করে নিয়ে যাওয়া হয়। রবিবার রাতে উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের খৈসার এলাকায় ঘটে এ ঘটনা। গৃহবধূ শামিমা আক্তার জানান, কর্মজীবনের তাগিতে তার স্বামী মিলন তালুকদার সৌদি আরবে চলে যান। ১ ছেলে ও ১ মেয়েকে নিয়ে খৈসার এলাকায় বসবাস করে আসছেন।