২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদেশী হত্যা তদন্তে অর্ধশতাধিক গোপন অভিযান

শংকর কুমার দে ॥ ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক ও রংপুরের জাপানি নাগরিক হত্যাকা-, পাবনায় গীর্জার ফাদার হত্যার চেষ্টার ঘটনার তদন্তে নাটকীয় মোড় নিয়ে নতুন চমক সৃষ্টি হতে পারে। যে কোন সময়ে গ্রেফতার হতে পারে ঘাতকগোষ্ঠীর সদস্যরা। গত এক সপ্তাহে অন্তত অর্ধশতাধিক গোপন অভিযান চালিয়ে তদন্তে আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন তদন্তকারী ও গোয়েন্দারা। গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

গোয়েন্দা সংস্থার একজন কর্মকর্তা বলেন, দুই বিদেশী হত্যাকা-ের ও গীর্জার ফাদার হত্যার চেষ্টার ঘটনার মটিভ এক ও অভিন্ন। দেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলাই হচ্ছে ঘাতকগোষ্ঠীর খুন করার মটিভ। এজন্য তারা বেছে নিয়েছে সহিংস সন্ত্রাসের নাশকতার নতুন ছক। তারা টার্গেট করেছে দেশের ভেতরে অবস্থানকারী বিদেশী নাগরিকদেরকে। দেশের ভেতরে আইএস নেই এমন দাবির চ্যালেঞ্জ জানাতেই সম্ভবত সোমবার পাবনায় গীর্জার এক ফাদারকে গলা কেটে হত্যা চেষ্টার ঘটনা ঘটিয়েছে উগ্র মৌলবাদী ধর্মান্ধ জঙ্গী গোষ্ঠী। এই ঘাতক গোষ্ঠীকে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী মাঠে নামিয়েছে বিদেশী খুনের পরিকল্পনাকারী চক্র। ঢাকায় ইতালীয় নাগরিককে হত্যার মাত্র ছয় দিনের ব্যবধানে রংপুরে জাপানি হত্যাকা-ের খুনীরা গ্রেফতার না হতেই আবার পাবনায় গীর্জার ফাদারের গলা কেটে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় তদন্তে নতুন মোড় নিচ্ছে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় বাস্তবায়ন বন্ধ ও নতুন নির্বাচনের দাবিতে বিদেশীদের মাধ্যমে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে একের পর এক বিদেশীদের খুন ও খুনের চেষ্টা ঘটানো হচ্ছে। উগ্র মৌলবাদী ধর্মান্ধ জঙ্গী গোষ্ঠীর সমন্বয়ে পেশাদার দুর্ধর্ষ দুর্বৃত্তদের রাজনৈতিক উদ্দেশে মাঠে নামিয়ে এসব ঘটনা ঘটানো হচ্ছে, যা একই সূত্রে গাঁথা এবং যারা ঘটিয়েছে তারা একই চক্র বলে নিশ্চিত হয়েছেন তদন্তকারী ও গোয়েন্দারা।

পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলেন, ঢাকায় ইতালি নাগরিক তাভেলা সিজার ও রংপুরে জাপানি নাগরিক হোসি কোনিওর প্রকৃত খুনীদের শনাক্ত করা না গেলেও দুই বিদেশী হত্যাকা-ের ধরন, লক্ষ্য নির্বাচন, আলামত ও সমসাময়িক রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণে একটাই ধারণা দেয় যে, হঠাৎ এ ধরনের হত্যাকা- রাষ্ট্র ও সরকারবিরোধী গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ, যা অব্যাহত থাকলে তা হবে রাষ্ট্র ও সরকারের জন্য এক অশুভ অশনিসঙ্কেত বয়ে আনার ইঙ্গিত দেয়। পাবনার ঈশ্বরদীর ব্যাপ্টিস্ট মিশনের ফেইথ বাইবেল চার্চ অব গড-এর ফাদার লুক সরকারকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টার ঘটনাও একই রকম। খুনীরা খুনের পর বা খুনের চেষ্টার ঘটনার পর কোন টাকা পয়সা, সোনা দানা, মোবাইল ফোন বা লাভজনক কিছুই নেয়নি। তাহলে তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে খুন করবে কেন ? প্রতিটি খুনের পেছনে ব্যক্তিগত ও আর্থিক কোনও বিরোধ বা কোন মটিভ থাকে, যা দুই বিদেশী হত্যাকা-ের ঘটনায় পাওয়া যায়নি, পাবনায় ফাদার হত্যাকা-ের চেষ্টার ঘটনাও একই ধরনের। তাহলে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন ওঠতে পারে, যারা খুন করছে বা খুনের চেষ্টা করছে তাদের নেপথ্যে আরও একটি অপশক্তি রয়েছে, যারা খুবই প্রভাবশালী।

অপরাধ বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করতে নাশকতার নীলনক্সার অংশ হিসেবে তাদের খুন করা হতে পারে। এ পরিকল্পনার সঙ্গে দেশী-বিদেশী চক্রান্ত জড়িত থাকতে পারে। বিদেশী নাগরিককে হত্যা করে তারা এবার সরকারকে ‘বেকায়দায় ফেলাই উদ্দেশ্য। প্রথমে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট টিমের বাংলাদেশ সফর স্থগিত, পরক্ষণে ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক হত্যাকা-, বিদেশীদের চলাচলে সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ, এরপর ক্রিকেট দলের সফর বাতিল ঘোষণা, তারপর রংপুরে জাপানি হত্যাকা-ের ঘটনার রেশ না কাটতেই আবার পাবনার ঈশ্বরদীতে গীর্জার ফাদারকে জবাই করে গলা কাটার চেষ্টা ঘটনাগুলোর যেন ঘটনা হচ্ছে ধারবাহিকভাবেই।

তদন্তের তদারকি করছেন এমন একজন কর্মকর্তা বলেন, ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক তাভেলা সিজার হত্যাকা-ের ঘাতকদের শনাক্ত করা হয়েছে। যে কোন সময়ে খুনী গ্রেফতার হওয়ার মতো চমক সৃষ্টি হতে পারে। রংপুরে জাপানি নাগরিক হোসি কোনিওর খুনীরাও এবং রংপুরের লুক সরকারকে হত্যার চেষ্টাকারীরা ধরা পড়বে খুব শীঘ্রই। তবে তদন্তের স্বার্থে অনেক কিছুই বলা যাচ্ছে না।

ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ॥ গুলশানে নিহত ইটালীয় নাগরিক সিজার তাভেলা ময়নাতদন্ত রিপোর্ট মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তার হাতে পৌঁছেছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে হত্যাজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। শরীরের তিনস্থানে গুলিবিদ্ধের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে।