১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ষষ্ঠবারের মতো শুনানি পেছাল সাকা পত্নীর

কোর্ট রিপোর্টার ॥ বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর রায় ফাঁসের মামলার চার্জ শুনানিতে সাকার স্ত্রী ফারহাদ কাদের চৌধুরী ট্রাইব্যুনালে হাজিরা দাখিল করেও তা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এরপর তিনি অসুস্থতার কারণে ট্রাইব্যুনালে আসতে পারেননি উল্লেখ করে সময়ের আবেদন দাখিল করায় ষষ্ঠবারেও চার্জ শুনানি করতে পারেনি ট্রাইব্যুনাল।

গতকাল সোমবার মামলাটির চার্জ শুনানির তারিখ ছিল। সাকা চৌধুরীর স্ত্রী ফারহাদ কাদের চৌধুরী ও ছেলে হুমাম কাদের চৌধুরী ট্রাইব্যুনালে এসে গতকাল হাজিরা দাখিলও করেন। বেলা দুইটার সময় শুনানি শুরু হওয়ার কথা ছিল। এর ঘণ্টাখানেক আগে বর্তমানে জামিনে থাকা ফারহাদ কাদের চৌধুরী হাজিরাপত্রটি প্রত্যাহার করে নেন এবং অসুস্থতার জন্য ট্রাইব্যুনালে আসতে পারেননি মর্মে সময়ের আবেদন দাখিল করেন। এরপর শুনানি শুরু হলে আসামিপক্ষের আইনজীবীগন ফারহাদ কাদের চৌধুরীর ট্রাইব্যুনালে হাজির হওয়ার বিষয়টি গোপন রেখে সময় বৃদ্ধির আবেদন জানিয়ে বলেন আসামি অসুস্থতার জন্য ট্রাইব্যুনালে আসতে পারেননি। তখন বিচারক পিপির বক্তব্য জানতে চান। সংশ্লিষ্ট পিপি অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম শামীম বলেন, বেশ কয়েকবার মামলাটির চার্জ শুনানি পেছানো হয়েছে। আর না পিছিয়ে তিনি চার্জ গঠনের আবেদন জানান। এরপর বিচারক আসামির সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে চার্জ শুনানির জন্য ১৫ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন।

আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামি সাকা চৌধুরীর স্ত্রী অসুস্থতার অজুহাত দেখানোয় এ পর্যন্ত ৫ বার চার্জ গঠনের তারিখ পেছানো হয়েছে। গতকাল শুনানিতে সাকার ছেলে হুমাম কাদের চৌধুরী অবশ্য ট্রাইব্যুনালে হাজির ছিলেন। শুনানিকালে জেলহাজতে থাকা আসামি ব্যারিস্টার একেএম ফখরুল ইসলাম, ফারুক আহমেদ, মাহবুবুল আহসান ও নয়ন আলীকেও ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

২০১৩ সালের ১ অক্টোবর সাকাকে মৃত্যুদ-াদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। তবে রায় ঘোষণার আগেই সাকা চৌধুরীর স্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্য এবং আইনজীবীরা রায় ফাঁসের অভিযোগ তোলেন। তারা ‘রায়ের খসড়া কপি’ সংবাদকর্মীদেরও দেখান। এরপর ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার একেএম নাসির উদ্দিন মাহমুদ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে শাহবাগ থানায় একটি মামলা করেন। গত বছর ২৮ আগস্ট আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন গোয়েন্দা পুলিশ ডিবির ইন্সপেক্টর মোঃ শাহজাহান।