২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাউচার্ডের দুঃখজনক বিদায়

বাউচার্ডের দুঃখজনক বিদায়
  • চায়না ওপেনের দ্বিতীয় পর্বে সামান্থা স্টোসার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ চলতি বছরের শুরু থেকেই নিষ্প্রভ ইউজেনি বাউচার্ড। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন থেকে শুরু করে ইউএস ওপেন, টেনিসের চার টুর্নামেন্টের সবটিতেই তিনি ছিলেন নিজের ছায়া। এবার চায়না ওপেনেও নিজেকে মেলে ধরতে ব্যর্থ হলেন কানাডিয়ান টেনিসের এই তরুণ তারকা। সোমবার প্রথম পর্বে বাউচার্ড মুখোমুখি হয়েছিলেন জার্মানির আন্দ্রেয়া পেটকোভিচের। প্রথম সেটেই ৬-২ গেমে হার মানেন তিনি। দ্বিতীয় সেটে ১-১ ব্যবধানে থাকার পরই ইনজুরির কারণে অবসর নিয়ে নেন বাউচার্ড। তবে ২১ বছর বয়সী এই কানাডিয়ান টেনিসতারকা বিদায় নিলেও দ্বিতীয় পর্বের টিকিট কেটেছেন অস্ট্রেলিয়ার সামান্থা স্টোসার। এ দিন তিনি ৬-৩ এবং ৬-২ গেমে সহজেই পরাজিত করেন রোমানিয়ার মনিকা নিকুলেস্কোকে।

গত মৌসুমেই টেনিসের নতুন তারকা হিসেবে আবির্ভাব ঘটে ইউজেনি বাউচার্ডের। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন ও ফ্রেঞ্চ ওপেনের সেমিফাইনালে উঠার পর প্রথম কানাডিয়ান খেলোয়াড় হিসেবে উইম্বলডনের ফাইনালে খেলার গৌরব অর্জন করেন। কিন্তু পারফর্মেন্সের সেই ধারাবাহিকতা আর ধরে রাখতে পারেননি তিনি। সর্বশেষ ইউএস ওপেনে খেলেছিলেন বাউচার্ড। কিন্তু সেই ইভেন্টে খেলতে গিয়ে লকার রুমে আঘাত পান এই কানাডিয়ান। এরপর উহান ওপেনে খেলার কথা থাকলেও পুরোপুরি ফিট না হওয়ায় নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন তিনি। এবার চায়না ওপেনে খেললেও প্রথম পর্বেই চোট-দুর্ভাগ্যের শিকার হয়ে ছিটকে পড়তে হয় তাকে। শুধু বাউচার্ড নয়, বর্তমান টেনিস বিশ্বে ইনজুরিটা যেন ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। এই চোটের কারণে গত কয়েক মাস ধরেই কোর্টের বাইরে মারিয়া শারাপোভা। ইনজুরির কারণে বিশ্রামে চলে গেছেন টেনিস র‌্যাঙ্ককিংয়ের শীর্ষ তারকা সেরেনা উইলিয়ামসও।

এদিকে ইউজেনি বাউচার্ডের আগে চায়না ওপেনের শুরুতে বিদায় নিয়েছেন শীর্ষ বাছাই সিমোনা হ্যালেপ এবং পেত্রা কেভিতোভাও। চেক প্রজাতন্ত্রের টেনিসতারকা কেভিতোভা হেরে বিদায় নিলেও সিমোনা হ্যালেপ ছিটকে পড়লেন চোটের কারণে। টুর্নামেন্টের প্রথম পর্বে স্পেনের অখ্যাত লারা অরুয়াবারেনার মুখোমুখি হয়েছিলেন টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের দুই নাম্বারে থাকা হ্যালেপ। প্রথম সেটে ৫-৪ ব্যবধানে পিছিয়ে থাকার পরই ইনজুরিতে পড়েন তিনি। এর ফলে আর কোর্টের লড়াইয়ে নামেননি টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই। যে কারণে পরের রাউন্ডের টিকিট নিশ্চিত করে নেন লারা অরুয়াবারেনা। আর দ্বিতীয় বাছাই পেত্রা কেভিতোভার পরাজয়টা সারা ইরানির কাছে। ইতালিয়ান তারকা এদিন ৭-৫ এবং ৬-৪ গেমে পরাজিত করেন উইম্বলডনের সাবেক চ্যাম্পিয়ন পেত্রা কেভিতোভাকে। তবে জয় দিয়ে যাত্রা শুরু করেছেন পোল্যান্ডের এ্যাগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানস্কা, কার্লা সুয়ারেজ নাভারো, ইউএস ওপেনের শিরোপাজয়ী ফ্লাভিয়া পেনেত্তা এবং তারই স্বদেশী রবার্টা ভিঞ্চি। হ্যালেপ ছিলেন চায়না ওপেনের শীর্ষ বাছাই। আর দ্বিতীয় বাছাই হিসেবে খেলতে নামেন কেভিতোভা। অথচ এই দুই সেরা তারকাই ছিটকে পড়লেন প্রথম রাউন্ডে। এ মাসের শেষের দিকেই সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হবে মৌসুমের শেষ টুর্নামেন্ট ডব্লিউটিএ ফাইনালস। অথচ এই মুহূর্তে ইনজুরিতে পড়ে যাওয়ায় সেখানে তাদের খেলা নিয়ে দেখা দেয় সংশয়। তবে এই মুহূর্তে টুর্নামেন্ট নয় বরং নিজের সুস্থতা নিয়েই ভাবছেন রোমানিয়ার হ্যালেপ, ‘এখন আমার ভাবনাতে শুধুই সুস্থ হওয়া। তবে এটা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই যে সব টুর্নামেন্টই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু আমার কাছে তার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ হলো নিজে শারীরিকভাবে ফিট থাকা এবং সবধরনের ব্যথামুক্ত থাকা।’ দীর্ঘদিন ধরে চোট আর ফর্মহীনতায় ভোগছেন পেত্রা কেভিতোভা। চলতি মৌসুমে ব্যর্থ হয়েছেন উইম্বলডনের শিরোপা ধরে রাখতেও।