১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জয় দেখছে রাজশাহী, ফলোঅনে রংপুর

  • মার্শাল-ইমতিয়াজের সেঞ্চুরি, মোশাররফ-মিরাজের ৬ উইকেট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ চলমান জাতীয় ক্রিকেট লীগের (এনসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ডের চার দিনের ম্যাচে তৃতীয় দিন শতক হাঁকিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিসের মার্শাল আইয়ুব ও সিলেট বিভাগের ওপেনার ইমিতিয়াজ আহমেদ। ইমতিয়াজের শতকে বরিশাল বিভাগের বিরুদ্ধে রানের চাপে পড়া সিলেট এখন ড্রয়ের স্বপ্ন দেখছে। তবে মার্শালের শতকের পরও খুলনার বিরুদ্ধে চাপে আছে ঢাকা মেট্রো। বগুড়ায় রংপুর বিভাগ ইনিংস পরাজয়ের শঙ্কায় লড়ছে। ঢাকা বিভাগের স্পিনার মোশাররফ হোসেনের বিধ্বংসী বোলিংয়ে তারা দ্বিতীয় ইনিংসেও আছে বিপর্যয়ের মধ্যে। তবে দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে চট্টগ্রামের বিরুদ্ধে রাজশাহী জয়ের গন্ধ পাচ্ছে। জিততে আর মাত্র ১৫৯ রান প্রয়োজন তাদের, হাতে আছে সব উইকেট। তৃতীয় দিনে চট্টগ্রামের দ্বিতীয় ইনিংস তাইজুল ইসলাম ও সাঞ্জামুল ইসলামের ঘূর্ণি বলে মাত্র ১৮১ রানেই গুটিয়ে যায়। তিনটি করে উইকেট নেন এ দু’জন। ২৫৬ রানের লিড নেয় তারা। জয়ের লক্ষ্যে দারুণ শুরু করেছে রাজশাহী। তৃতীয় দিনশেষে জুনাইদ সিদ্দিকীর হাফ সেঞ্চুরিতে বিনা উইকেটে ৯৮ রান তুলেছে তারা। আজ শেষদিনে আর ১৫৯ রান প্রয়োজন রাজশাহীর জয়ের জন্য। দ্বিতীয় স্তরের অপর ম্যাচে খুলনায় নিশ্চিত ড্রয়ের পথে আছে সিলেট-বরিশাল ম্যাচ। বিনা উইকেটে ১১২ রান নিয়ে শুরু করা সিলেট দিন শেষ করেছে ৭ উইকেটে ৩৬৩ রানে। এখনও ১৬৪ রানে পিছিয়ে থাকলেও ম্যাচে পুরোপুরি শেষ হয়েছে মাত্র সিলেটের প্রথম ইনিংস। এ দিন সিলেটের ওপেনার ইমতিয়াজ ৩১৫ বলে ১৫ চারে ১২৭ রান করেন। সোহাগ গাজী নিয়েছেন ৩ উইকেট।

প্রথম স্তরের ম্যাচে বগুড়ায় ইনিংস পরাজয়ের মুখে পড়েছে রংপুর। প্রথম ইনিংসে ২৪৮ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পর ফলোঅনে পড়ে তারা। নাসির হোসেন একাই লড়ে ৭৩ রানের দারুণ ইনিংস খেলেছেন ১১৩ বলে ১১ চারে। ৮২ রানে ৬ উইকেট নেয়া মোশাররফ দ্বিতীয় ইনিংসেও নিয়েছেন ২ উইকেট। দিনশেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৫ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারানো রংপুর পিছিয়ে ১৪৬ রানে। প্রথম স্তরের অপর ম্যাচে মিরপুরে ড্রয়ের পথেই আছে খুলনা-ঢাকা মেট্রো ম্যাচ। মার্শালের সেঞ্চুরির সুবাদে ঢাকা মেট্রোর প্রথম ইনিংস শেষ হয়েছে ২৭১ রানে। মার্শাল ১৮৯ বলে ১৪ চার ও ১ ছক্কায় ১০৭ রান করেন। মেহেদী হোসেন মিরাজ ৬১ রানে নেন ৬ উইকেট। ১৮৪ রানে পিছিয়ে এখনও মেট্রো।

প্রথম স্তর ॥ খুলনা-ঢাকা মেট্রো ম্যাচ ॥ খুলনা প্রথম ইনিংস- ৪৫৫/১০; ১১২.১ ওভার (মিঠুন ১৮৬, মিরাজ ৬৭, তুষার ৫৯; শহীদ ৪/৮৪)। ঢাকা মেট্রো প্রথম ইনিংস- আগের দিন ৭৮/৪; ৩০.১ ওভার (মার্শাল ২৭*, আসিফ ২৫*; মুস্তাফিজ ৩/১৯) ও তৃতীয় দিন-২৭১/১০; ৯৫.৩ ওভার (মার্শাল ১০৭, শরীফুল্লাহ ৬৬*; মিরাজ ৬/৬১, মুস্তাফিজ ৩/৩৫)।

ঢাকা-রংপুর ম্যাচ ॥ ঢাকা প্রথম ইনিংস-৪৪৯/১০; ১৩৮.৩ ওভার (নাদিফ ১১১, রনি ৫৯, রকিবুল ৫২; তানভির ৪/৬২, সোহরাওয়ার্দী ৩/১২০)।

রংপুর প্রথম ইনিংস- আগের দিন ৯৮/৩; ৩৯ ওভার (লিটন দাস ৫১, তানভির ১৭*, নাসির ১১*; মোশাররফ ৩/৩৩) ও তৃতীয় দিন ২৪৮/১০; ৯৮.১ ওভার (নাসির ৭৩, লিটন ৫১; মোশাররফ ৬/৮২, শুভাগত ৩/৪৬) এবং দ্বিতীয় ইনিংস-৫৫/৩; ২৮ ওভার (সোহরাওয়ার্দী ১৬*, সায়মন ২১; মোশাররফ ২/১৩)।

দ্বিতীয় স্তর ॥ বরিশাল-সিলেট ম্যাচ ॥ বরিশাল প্রথম ইনিংস- ৫২৭/১০; ১২৬.১ ওভার (মোসাদ্দেক ২০০*, ফজলে ১০৩; রাজু ৩/৪৫, এনামুল জুনিয়র ৩/১১০)। সিলেট প্রথম ইনিংস- আগের দিন ১১২/০; ৪০ ওভার (শাহনাজ ৫৮*, ইমতিয়াজ ৫১*) ও তৃতীয় দিন-৩৬৩/৭; ১৩৮ ওভার (ইমতিয়াজ ১২৭, জাকির ৮৯, শানাজ ৫৮, রাজিন ৫৫*; সোহাগ ৩/৭৫)।

চট্টগ্রাম-রাজশাহী ম্যাচ ॥ চট্টগ্রাম প্রথম ইনিংস- ৩৮৩/১০; ৯৫.৩ ওভার (ইরফান ১০২, ইয়াসির ৯১, মুমিনুল ৯০, সাইফুদ্দিন ৭৪*; জাবির ৩/৫৩, মুক্তার ৩/৭৫) ও দ্বিতীয় ইনিংস-১৮১/১০; ৬৭.২ ওভার (ইয়াসির ৬১, ইরফান ৫৫; সাঞ্জামুল ৩/৩৯, তাইজুল ৩/৭২)। রাজশাহী প্রথম ইনিংস- ৩০৮/১০; ৭১.৪ ওভার (জুনায়েদ ৮১, ফরহাদ ৬৯, নাজমুল ৬১; জুবায়ের ৪/১০৪) ও দ্বিতীয় ইনিংস-৯৮/০; ২০ ওভার (জুনাইদ ৫৩*, শান্ত ৪৫*)।