২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পিডিবির সাবেক চেয়ারম্যানকে হত্যা

পিডিবির সাবেক চেয়ারম্যানকে হত্যা

অনলাইন রির্পোটার ॥ পিডিবির সাবেক চেয়ারম্যান মুহ্ম্মদ খিজির খানকে ঘরে ঢুকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তবে কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে, তা জানা যায়নি।

মধ্য বাড্ডার বাড়িতে সোমবার সন্ধ্যায় কয়েকজন দুর্বৃত্ত ঢুকে খিজির খানকে খুন করে পালিয়ে যায় বলে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার মুনতাসিরুল ইসলাম জানিয়েছেন।

নিজের বাড়িতে একটি খানকা শরীফ ছিল খিজির খানের। তাকে অনেকে পীর মানত। ছয় তলা ভবনের মালিক খিজির খান পরিবার দিয়ে তৃতীয় তলায় থাকেন। দোতলায় রয়েছে তার রহমতিয়া খানকা শরীফ। সেখানেই তিনি হত্যাকাণ্ডের শিকার হন।

ওই ভবনের সামনে মুদি দোকানি মো. ওয়াহাব বলেন, বাসা ভাড়া নেওয়ার কথা বলে ৫/৬ জন ঢুকে এই হত্যাকাণ্ড ঘটায়।

পাশের একটি লন্ড্রি দোকানের কর্মী আবুল কালাম ঘটনার পরপরই ওই বাসায় ঢোকেন।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, খিজির খানের লাশ বাথরুমে পড়ে ছিল। হাত-পা ছিল বাঁধা, গলা কাটা।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক এই শীর্ষ কর্মকর্তাকে হত্যার ঘটনার পরপরই শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের যুগ্ম কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় সাংবাদিকদের বলেন, “প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ৫/৬ জনের একটি দল এই হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছে। তবে কী উদ্দেশ্যে এই ঘটনা ঘটিয়েছে, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।”

হত্যাকাণ্ডের সময় বাড়িতে খিজির খানের স্ত্রী, ছেলের বৌ এবং দুই নাতি ছিলেন বলে জানান ডিএমপির গুলশান জোনের উপকমিশনার মোশতাক আহমেদ।

তিনি বলেন, “তিন তলায় তাদের হাত-পা বেঁধে আটকে রেখে দ্বিতীয় তলার মাহফিল ঘরে তাকে হত্যা করা হয়।

“আমরা এখানে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেছি। হাত-পা বাঁধা স্বজনদের উদ্ধারের পর তাদের সঙ্গেও কথা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডে অন্তত ৪ থেকে ৬ জন অংশ নিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি।”

বাড়ি থেকে কিছু খোয়া গেছে কি না, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কিছু জানা যায়নি বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। পুলিশ কর্মকর্তা কৃষ্ণপদ রায়