২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্লিনিকে জন্মের সময় শিশুর মাথা বিচ্ছিন্ন ॥ বিক্ষোভ ভাংচুর

  • ডাক্তারসহ আটক ৩

নিজস্ব সংবাদদাতা, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ৬ অক্টোবর ॥ সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর মডার্ন ক্লিনিকে জন্মের সময় নবজাতাকের মাথা বিচ্ছিন্ন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর নবজাতকের মাকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর নবজাতকের স্বজনরা বিক্ষোভ করে ক্লিনিক ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। পরে পুলিশ ওই ক্লিনিক থেকে কর্তব্যরত চিকিৎসকসহ ৩ জনকে আটক করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পুরান কাঁচপুর এলাকার হাবিবুল্লাহ মিয়ার ভাড়াটে ও সুফিয়ান মিয়ার স্ত্রী মর্জিনা আক্তার সোমবার সন্ধ্যায় গর্ভবতী অবস্থায় চিকিৎসার জন্য মডার্ন ক্লিনিকে যান। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক মর্জিনাকে জানায়, তার গর্ভের সন্তান মৃত অবস্থায় রয়েছে। বিষয়টি স্বজনরা জানতে পেরে গর্ভের শিশুটি বের করে আনার জন্য ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন। পরে রাতে ইনজেকশনের মাধ্যমে শিশুটি স্বাভাবিক জন্মের জন্য চেষ্টা চালায়। একপর্যায়ে টেনে বের করে আনার সময় শিশুটির মাথা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ ঘটনা জানাজানি হলে আত্মীয়-স্বজনসহ আশপাশের লোকজন ক্লিনিকে বিক্ষোভ করে। একপর্যায়ে ক্লিনিক ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। ঘটনার পর নবজাতকের মাকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্বজনদের শান্ত করে। এ সময় ওই ক্লিনিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুজিত কুমার বৈদ্য, নার্স মফিজা বেগম, খাদিজা আক্তারকে আটক করে পুলিশ।

সোনারগাঁ থানার পুলিশ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ঘটনার পর মডার্ন ক্লিনিক থেকে চিকিৎসকসহ ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত কেউ অভিযোগ দিতে থানায় আসেনি।